১৩ই ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং | ২৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ | রাত ৮:৫১
ভিশন সেন্টার

সকল জেলার জন্য ‘ভিশন সেন্টার’ গড়ে তোলা হবে

বিশেষ প্রতিবেদকঃ স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, গোপালগঞ্জের শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব চক্ষু হাসপাতালকে কেন্দ্র করে দেশের সকল জেলার জন্য ‘ভিশন সেন্টার’ গড়ে তোলা হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অনুপ্রেরণায় এই ‘ভিশন সেন্টার’ শুধু বাংলাদেশ নয় দক্ষিণ এশিয়ায় মানুষের অন্ধত্ব দূরীকরণে মাইলফলক হিসাবে ভূমিকা রাখবে।

আজ সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব চক্ষু হাসপাতাল ও ট্রেনিং ইনস্টিটিউট এবং ন্যাশনাল আই কেয়ার এর সাথে ভারতের অরবিন্দ ইনস্টিটিউটের মধ্যে দুটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় একথা বলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, প্রাথমিক পর্যায়ে ‘ভিশন সেন্টার’কে কেন্দ্র করে দক্ষিণ বঙ্গের ২১ জেলার ১২০ উপজেলায় আই ক্যাম্প ও প্রশিক্ষনের আয়োজন করে জনগণের জন্য চক্ষু চিকিৎসা নিশ্চিত করা হবে। পর্যায়ক্রমে এই উদ্যোগ সারা দেশে ছড়িয়ে দেওয়া হবে।

দেশে অন্ধত্ব নিবারণসহ চোখের চিকিৎসায় চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীদের দক্ষতা বৃদ্ধি ও মানব সম্পদ উন্নয়নে শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব চক্ষু হাসপাতাল ও ট্রেনিং ইনস্টিটিউটকে সহযোগিতা করবে ভারতের তামিল নাডু রাজ্যের আন্তর্জাতিক মানের বিশে^র সর্ববৃহৎ চক্ষু হাসপাতাল লায়ন্স অরবিন্দ ইনস্টিটিউটের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকগণ। আজ দুটি স্মারক স্বাক্ষরের মধ্য দিয়ে এই সহযোগিতার পথ প্রশস্ত হলো।

অরবিন্দ হাসপাতালের পক্ষে স্বাক্ষর করেন অরবিন্দ আই কেয়ার সিস্টেমের নির্বাহী পরিচালক তুলশী রাজ রাভিলা (Thulasiraj Ravilla) এবং বাংলাদেশের ন্যাশনাল আই কেয়ারের পক্ষে লাইন ডাইরেক্টর অধ্যাপক ডা. গোলাম মোস্তফা ও শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব চক্ষু হাসপাতালের পরিচালক ডা. সাইফুদ্দীন আহম্মদ।

অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক, স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব সিরাজুল হক খান, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সাবেক মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. দীন মোঃ নূরুল হক, স্বাস্থ্য অর্থ ইউনিটের মহাপরিচালক মোঃ আসাদুল ইসলাম, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এ এইচ এম এনায়েত হোসেনসহ মন্ত্রণালয়, অধিদপ্তর এবং অরবিন্দ ইনস্টিটিউটের ঊর্দ্ধতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*