ইসলামী ফতোয়াবাজির বিরুদ্ধে মনরোগ বিশেষজ্ঞা ডঃ সুলতানা রাজিয়া

বেশ কিছুদিন থেকে একটি ধর্মব্যবসায়ী গোষ্ঠী নানা ধরনের গুজব রটিয়ে একটি অরাজক পরিস্থিতি সৃষ্টির পাঁয়তারা করছে। তারা একেক সময় একেক ইস্যু নিয়ে আবির্ভূত হয়। গত শনিবার ২০ মে ২০১৭ তারিখে আসরের নামাজের পর বরিশাল উজিরপুর শিকদারপাড়া মেজর জলিল নূরাণী মাদ্রাসা, কালিবাড়ি মুসলিমপাড়া মাদ্রাসা, উজিরপুর আলীয়া মাদ্রাসা, উজিরপুর কওমী মাদ্রাসার অজ্ঞাতনামা ২৫-৩০ জন শিক্ষার্থী ৫/৬ টা দলে বিভক্ত হয়ে “হেযবুত তওহীদ একটি কুফুরী সংগঠন” শিরোনামের একটি হ্যান্ডবিলের আনুমানিক ৭/৮শ কপি স্থানীয় বাজারগুলোর দোকানে দোকানে এবং সাধারণ মানুষের মাঝে দ্রুত বিলি করে স্থান ত্যাগ করে। এ ঘটনায় স্থানীয় জনগণের মধ্যে ব্যাপক আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। গতকাল বরিশাল শহীদ সেরনিয়াবাদ প্রেসক্লাবে ধর্মব্যবসায়ীদের অপপ্রচার ও নাশকতা সৃষ্টির এ ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে একটি সংবাদ সম্মেলন করেছে হেযবুত তওহীদ।

এমনই মিথ্যা, বানোয়াট, নামঠিকানা বিহীন হ্যান্ডবিল প্রচার করে তারা গত ১৪ মার্চ ২০১৬ নোয়াখালীতে হেযবুত তওহীদ সদস্যদের বাড়িঘর লুটপাট করে ধ্বংসযজ্ঞ চালিয়েছে, ভস্মীভূত করেছে, বহু সদস্যের অঙ্গহানী ঘটিয়েছে, দুই জনকে নৃশংসভাবে জবাই করে, হাত পায়ের রগ কেটে, চোখ উপড়ে হত্যা করেছে, পেট্রোল দিয়ে তাদের দেহ জ্বালিয়ে দিয়েছে, উদ্ধারকারী আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর উপর এবং থানাতে পর্যন্ত হামলা চালিয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে হেযবুত তওহীদের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. মাহবুব আলম মাহফুজ বলেন, “হেযবুত তওহীদ আল্লাহর প্রকৃত ইসলাম মানবজাতির সামনে তুলে ধরছে এবং সকল প্রকার সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, অপরাজনীতি, ধর্মব্যবসার বিরুদ্ধে দেশ ও জাতির কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছে।  মো’মেন মুসলিম হিসাবে এটা একদিকে যেমন আমাদের ঈমানী দায়িত্ব অন্যদিকে আমাদের নাগরিক কর্তব্য। এ কাজের জন্য আমরা কোনো বিনিময় আশা করি না, আমাদের রাজনৈতিক কোন অভিসন্ধি নেই। আমরা এর বিনিময় আমরা নেব আল্লাহর কাছ থেকে। আমাদের পত্রিকায় প্রকাশিত প্রবন্ধের বিভিন্ন অংশকে বিকৃতভাবে উপস্থাপন করে ধর্মোন্মাদনা সৃষ্টি করা হচ্ছে।  এ সকল ষড়যন্ত্রের বিষয়ে সতর্ক থাকার জন্য এবং আমাদের পূর্ণ বক্তব্য জানার জন্য আমরা এ দেশের সকল সচেতন মানুষকে অনুরোধ জানাই। আমাদের সুস্পষ্ট কথা হচ্ছে, আমরা চাই ধর্মের নামে যেন আর কোনো জঙ্গিবাদী কর্মকাণ্ড না হয়, যেন মানুষের ধর্মবিশ্বাসকে ভুল খাতে প্রবাহিত করে স্বার্থহাসিল করা না হয় সে লক্ষ্যে ধর্মের প্রকৃত শিক্ষাগুলো মানুষের সামনে তুলে ধরতে।” বেনামী হ্যান্ডবিলটিতে হেযবুত তওহীদের বিরুদ্ধে যে অভিযোগগুলো আরোপ করা হয়েছে সংবাদসম্মেলনে কোর’আন হাদীস ও ঐতিহাসিক দলিল দিয়ে সেগুলোর প্রত্যেকটিকে মিথ্যা প্রমাণ করা হয়।

মাহবুব আলম বলেন, “আমাদের প্রতি অভিযোগ আরোপ করা হয় যে আমরা নাকি আন্তধর্মীয় ঐক্য চাই, আমরা নাকি নতুন ধর্ম সৃষ্টি করছি। সারা পৃথিবীর সকল মানুষকে এক পরিবারভুক্ত করার জন্য আল্লাহর রসুল আবির্ভূত হয়েছিলেন। রসুলাল্লাহকে (সা.) আল্লাহ অন্য ধর্মের অনুসারীদেরকে এ কথা বলার জন্য আদেশ করছেন যে, ‘হে আহলে-কেতাবগণ! এমন একটি বিষয়ের দিকে এসো- যা আমাদের মধ্যে ও তোমাদের মধ্যে সমান- যে, আমরা আল্লাহ ছাড়া অন্য কারও ইবাদত করব না, তাঁর সাথে কোন শরীক সাব্যস্ত করব না এবং একমাত্র আল্লাহকে ছাড়া কাউকে প্রতিপালক বলে মানবো না। তারপর যদি তারা স্বীকার না করে, তাহলে বলে দাও যে, ‘সাক্ষী থাক আমরা তো মুসলিম।’ (সুরা ইমরান ৬৪)। সুতরাং অন্য ধর্মের অনুসারীদেরকে ন্যায়ের ভিত্তিতে ঐক্যবদ্ধ করার উদ্যোগ গ্রহণ করা নতুন ধর্ম সৃষ্টি করা নয় বরং এটা ফরজ এবং রসুলের সুন্নাহ। মদীনায় তিনি সকল ধর্মের অনুসারীদেরকে নিয়ে একটি জাতি তৈরি করেছিলেন।”

অপপ্রচারকারীদের উদ্দেশ্য কী সেটা সকলকে বুঝতে হবে। এরা চায় একটা ফেতনা সৃষ্টি করে মানুষের ঈমানকে ভুল পথে প্রবাহিত করে নিজেদের ক্ষমতাকে জাহির করতে এবং দেশে দাঙ্গাময় পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে। আমরা চাই না আমাদের দেশটা সিরিয়া আফগান ইরাকের মতো ভয়ঙ্কর পরিণতির শিকার হোক। আমরা সবাইকে এ ব্যাপারে সজাগ ও সচেতন হওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি, কারণ সমাজে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টি হলে কারো জীবনই নিরাপদ থাকবে না।
মাহবুব আলম বলেন, “উক্ত লিফলেট বিতরণের সঙ্গে জড়িত সকলকে আইনের আওতায় না আনা হলে যে কোন সময় আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটার সমুহ সম্ভাবনা রয়েছে। তাই উজিরপুর থানা এলাকায় বসবাসকারী হেযবুত তওহীদের সকল সদস্য-সদস্যাদের জান-মালের নিরাপত্তার স্বার্থে দ্রুত কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্য আমরা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।”

প্রকাশ থাকে যে, অ-রাজনৈতিক আন্দোলন হেযবুত তওহীদের সদস্যরা বিগত ২২ বছর যাবৎ বাংলাদেশের প্রচলিত আইন মান্য করে শান্তিপূর্ণ উপায়ে সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, অপ-রাজনীতি ও সাম্প্রদায়িক উন্মাদনা সৃষ্টির বিরুদ্ধে জনসচেতনতা সৃষ্টির মাধ্যমে জাতিকে সত্য ও ন্যায়ের পক্ষে ঐক্যবদ্ধ করার সর্বাত্মক প্রচেষ্টা করে যাচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*