রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৬:৪৯ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ খবর :
বঙ্গবন্ধুকে জানার এবং চর্চার প্রাসঙ্গিকতা চিরকালীন-ড. কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী মাদকের ভয়াল থাবা শার্শা-বেনাপোলেঃ গত ২৫ দিনে নারী-পুরুষ ও শিশু সহ আটক-৩৩ শার্শায় জনসাধারণের কল্যাণে বিভিন্ন সামগ্রী বিতরণ করলেন আফিল উদ্দিন এমপি উদ্ভাবনী স্টার্টআপের খোঁজে শুরু হলো আইডিয়াথন প্রতিযোগিতা ফরিদপুরে শিক্ষকদের নিয়ে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত পাইকগাছায় দাঙ্গা-হাঙ্গামার অভিযোগে আটক -৩ তুলা উৎপাদনে সরকার অত্যন্ত গুরুত্ব দিচ্ছে -কৃষিমন্ত্রী লক্ষ্মীপুরে প্রার্থী বাছাই নিয়ে দ্বন্দ্বে হামলায় আ.লীগের সভা পণ্ড, মঞ্চ ভাঙচুর নিরাপদ খাদ্য ব্যবস্থাপনা গড়তে কাজ করছে সরকার -খাদ্যমন্ত্রী বিদেশ প্রত্যাগত কর্মীদের অভিজ্ঞতা অনুযায়ী প্রশিক্ষণ ও সনদায়নের উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে -প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী

পাকিস্তানি সিনেমার সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ সুপারস্টার ঝর্ণা বসাক (শবনম) পেয়েছিলেন গণধর্ষণ

ঝর্ণা বসাক শবনমের গণধর্ষণ

দেবাশীষ মুখার্জী, কূটনৈতিক প্রতিবেদকঃ পাকিস্তানের সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ মঞ্চ ও চলচ্চিত্র অভিনেত্রী ঝর্ণা বসাক- যিনি ‘শবনম’ নামে পরিচিত ছিলেন। শবনম শব্দের অর্থ ফুলের উপর ঝরে পড়া শিশির বিন্দু। নব্বই দশকের শেষের দিকে মারাত্মক মানসিক আঘাতপ্রাপ্তির কারণে, তিনি পাকিস্তান ছেড়ে তার নিজের জন্মভূমি বাংলাদেশে ফিরে আসতে বাধ্য হন। এরপর থেকেই শুরু হয় পাকিস্তানি চলচ্চিত্রের অবক্ষয়ের যুগ।
১৯৭৮ সালের ১৩ই মে লাহোরের গুলবার্গে শবনমের বাড়িতে পাঁচজন সশস্ত্র লোক ডাকাতি করতে ঢোকে। জোর করে লক্ষাধিক টাকা নগদ, স্বর্ণালঙ্কার ও অন্যান্য গৃহস্থালীর জিনিসপত্র নিয়ে যায় এবং ঐ পাঁচ ডাকাত মিলে শবনমকে তার স্বামী রবীন ঘোষ এবং তাদের একমাত্র পুত্র রনি ঘোষের সামনে গণধর্ষণ করেছিল।
সেই মামলার সাত আসামির মধ্যে প্রভাবশালী ব্যক্তি মোহাম্মদ ফারুক বান্দিয়াল, ওয়াসিম ইয়াকুব ভাট, জামিল আহমদ, তাহির তানভীর, জামশেদ আকবর শাহী, আগা আকিল আহমদ ও মোহাম্মদ মোজাফফর অন্তর্ভুক্ত ছিল। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে পাকিস্তানি দণ্ডবিধির ৪১২ ধারায় বিশেষ সামরিক আদালতে মামলা দায়ের করা হয়। দোষী সাব্যস্ত ডাকাত তথা ধর্ষণকারীরা ছিল প্রভাবশালী পরিবারের সদস্য। তারা গণধর্ষণ হিসেবে মামলাটি নথিভুক্ত না করতে স্থানীয় পুলিশকে প্রভাবিত করতে সক্ষম হয়েছিল। ডাকাতির দায়ে দোষী সাব্যস্ত পাঁচজনকে মৃত্যুদণ্ডের রায় দেওয়া হয়েছিল। আগা আকিল আহমদকে দশ বছরের কারাদণ্ড এবং মোহাম্মদ মোজাফফর ১৯৭৯ সালের অক্টোবরে খালাস দেওয়া হয়।
মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ধর্ষণকারীদের ক্ষমা করে দেওয়ার জন্য শবনম পরিবারের উপর প্রবল চাপ সৃষ্টি করা হয়েছিল। লাহোর সিনেমার সুপারস্টার শবনম তখন প্রাণ বাঁচাতে সপরিবারে লন্ডন চলে যেতে বাধ্য হয়েছিলেন।
শবনমকে ধর্ষণকারী ফারুক বান্দিয়াল পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের খুশাব জেলার দোর্দণ্ডপ্রতাপ রাজনীতিবিদ। বিগত ২০১৮ পার্লামেন্ট নির্বাচনের পূর্বে ফারুক বান্দিয়াল, সেনা সমর্থিত ইমরান খানের পাকিস্তান তেহরিক ইনসাফ (পিটিআই) পার্টিতে যোগ দিয়েছিল। কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই শবনমের বাড়িতে ডাকাতি ও গণধর্ষণে ফারুক বন্দিয়ালের জড়িত থাকার সংবাদটি- সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায়।
শবনম ১৯৪৬ সালে ১৭ আগস্ট ঢাকায় জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৬৪ সালের ২৪ ডিসেম্বর তিনি স্বনামধন্য সুরকার রবীন ঘোষের সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন।
১৯৬২ সালে উর্দু ‘চান্দা’ সিনেমার মাধ্যমে তিনি তৎকালীন অবিভক্ত পাকিস্তানে তারকাখ্যাতি অর্জন করেন।পরবর্তী বছরে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘তালাশ’ সিনেমাটি ঐ সময়ের সর্বাপেক্ষা ব্যবসা সফল ছবির মর্যাদা লাভ করে। অনন্যসাধারণ অভিনয়শৈলীর মধ্য দিয়ে শবনম পাকিস্তানের ইতিহাসে সবচেয়ে জনপ্রিয় নায়িকা হিসেবে নিজের স্থান পাকাপোক্ত করে নিয়েছিলেন। পাকিস্তানে তিনিই একমাত্র চলচ্চিত্র অভিনেত্রী- যিনি ১৯৬০-এর দশক থেকে ১৯৮০-এর দশক পর্যন্ত একটানা তিনটি দশক ধারাবাহিক ও সফলভাবে রোমান্টিক চরিত্রে অভিনয় করে, অগণিত দর্শক-শ্রোতার হৃদয় জয় করতে সমর্থ হয়েছিলেন। ১৯৭১ সালে বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর, তিনি যাতে সদ্য-স্বাধীন জন্মভূমিতে ফিরে না যান- এজন্য পাকিস্তানের তৎকালীন বিশিষ্ট ব্যক্তিরা তাকে সনির্বন্ধ অনুরোধ জানিয়েছিলেন এবং তখন শবনম তার কর্মক্ষেত্র লাহোর ছেড়ে না যাওয়ার ঘোষণা দিতে বাধ্য হয়েছিলেন।
শবনম ১৩ বার সম্মানসূচক নিগার পুরস্কার প্রাপ্তির পাশাপাশি, তিনবার পাকিস্তানের সর্বশ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী নির্বাচিত হন। বাংলাদেশে ফিরে আসার পর ১৯৯৯ সালে তিনি ‘আম্মাজান’ চলচ্চিত্রে সর্বশেষ কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেন। শবনমের পরিনত বয়সের এই সিনেমাটিও ছিল যথেষ্ট ব্যবসা-সফল।
ঝর্ণা বসাক (শবনম) ২০১৬ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি তার জন্মস্থান ঢাকায় পরলোকগমন করেন।
SHARE THIS:

শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

দ্যা নিউজ এর বিশেষ প্রকাশনা

পুরাতন সংবাদ পডুন

SatSunMonTueWedThuFri
   1234
19202122232425
2627282930  
       
   1234
       
282930    
       
      1
       
     12
       
2930     
       
    123
25262728   
       
      1
9101112131415
30      
  12345
6789101112
272829    
       
   1234
2627282930  
       
1234567
891011121314
22232425262728
293031    
       
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৪-২০২০ || এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি
IT & Technical Support: BiswaJit