শনিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯:১২ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ খবর :
‘অমানবিক মুখ্যমন্ত্রী’ মুখ ফসকে সত্যি কথাটা বেরিয়ে গিয়েছে অভিষেকের -বাবুল কুড়িগ্রামে মজুরির টাকা চাইতে গিয়ে দফায় দফায় নির্যাতিত শিশু শ্রমিক আল্লামা শাহ আহমেদ শফীর মৃত্যুতে মন্ত্রিপরিষদের সদস্যবৃন্দের শোক ভালো উদ্যোক্তা হওয়ার জন্য প্রয়োজন আত্মবিশ্বাস -মোস্তাফা জব্বার যশোরে জমি নিয়ে বিরোধে ভাই-ভাইপোদের হাতে বৃদ্ধ খুন আল্লামা শফীর মৃত্যুতে তথ্যমন্ত্রীর শোক শার্শায়  ক্ষুধা লাগলে খেয়ে যান খাবার খেলো তিন শতাধিক মানুষ আল্লামা শাহ আহমদ শফীর মৃত্যুতে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিন এমপি’র শোক দক্ষতায় যে জাতি এগিয়ে থাকবে চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের নেতৃত্ব তাদের হাতেই থাকবে -মোস্তাফা জব্বার আন্ত:জেলা চোর সিন্ডিকেটের ৩সদস্য আটক

ষোলোর ষোলোয়ানা, আর ঘুমিওনা কলকাতা

ষোলোর ষোলোয়ানা
————————
কচ
==
গোপাল কেবল সুবোধ হলেই চলে না,
দুর্দম, ডানপিটে, বামপিটেও হতে হয়;
পিটিয়ে ছাতু করার পরও সুবোধ,
তবেই না গোপাল!

৪৬-এর গোপালকে আজো খুঁজি —
হোদল কুতকুতে গ্ল্যাক্সো বেবীর দল সব,
গাছে চড়েনি, বনের বেজী বন্ধু হয়নি,
এঁদো পুকুড়ের ভেলায় চাপেনি,
চাঁটি মারলে ঘুঁষি মারে নি।
আর সুবোধের নামে তো মোল্লা-গোস্ত
ধরমতলায় ধরম ভাজে!

হ্যাঁ, গোপাল ছিল বটে! এক পাঁঠা।
ঝটকা-রক্তের দোকান, চপারের কারবারি,
— যে নির্বুদ্ধিতা হিন্দু বাঁচায়।
কিন্তু গোপাল ক’টা? গুণে দেখেছো কখনো?
গ্রেট ক্যালকাটা থেকে নোয়াখালী,
সব গোপালই বড্ড সুবোধ!
প্রাইজ, সারপ্রাইজ নিয়ে
সোনার তরী ভরিয়ে থুয়েছে,
নিজেরই জায়গা নেই।
শত গোপালের ঠাঁই যে গোপাল দিলো,
সে তো সত্যিই নির্বোধ!
নইলে গ্রেটার বেঙ্গল তো ছিল পাক্কা!
একটা ফোঁটা চোনা ফেলে ইতিহাসের পাতায়-পাতায়
১৬ ই আগষ্ট শুধুই পাঁঠার ছবি —

গোপাল পাঁঠা।

 

 

আর ঘুমিওনা কলকাতা
———————————
মিতালী মুখার্জী
===========
সেদিন ভোরে সূর্য ওঠার আগেই
ঘুমন্ত কলকাতার বুক চিরে
উঠল এক পৈশাচিক চিৎকার
আল্লা হো আকবর ।।
হিন্দু নিধন যজ্ঞে মেতে উঠল
পঞ্চাশ হাজার জেহাদি।
জিন্না আর সুরাবর্দির ষড়যন্ত্রে রক্তে ভেসে গেল
কলকাতা শহর আর শহরতলী।
বেলেঘাটা নারকেলডাঙা চিৎপুর
কলুতোলা মেটিয়াবুরুজ লিচুবাগান,
হাহাকার ,আর্তনাদ আর মৃতের পাহাড়।
আর সুরাবর্দি তুমি?

সেই হত্যালীলার শান্ত সুফী!!
সুপরিকল্পিতভাবে নেমেছিলে
এই বিধ্বংসী খেলায়।
নারী-পুরুষ নির্বিশেষে চলল নৃশংস গণহত্যা,
আর্তচিৎকারে মথিত হল বাঙ্গালার আকাশ।
শ্যামবাজার হাতীবাগান ষষ্ঠীতলা
লাইট হাউস বেঙ্গল ক্লাব
উন্মত্ত আক্রোশে ধ্বংস হল
ভূমিপুত্রদের যাবতীয় দলিল।
ধর্মতলা মানিকতলা ক্যানিং স্ট্রিট
শুধু অগুনতি লাশের ঠিকানা।
কমলা বস্ত্রালয় ভারত ভান্ডার
লক্ষী স্টোর্স — রক্ষা পেলনা একটাও হিন্দু দোকান।
বাঙ্গালীকে জনে-মানে-ধনে
শেষ করে দিতে চেয়েছিলে
সুপরিকল্পিতভাবে।
তখন জেগে উঠল গোপাল পাঁঠা।

নিয়তির নিয়মে সেই ডানপিটে যুবকের ছিল পাঁঠার মাংসের দোকান।
একতরফা মার খাওয়া অসহায় বাঙ্গালীকে বাঁচাতে
গর্জন করে উঠে দাঁড়াল সে।
খোলা রাম’দা হাতে নিয়ে
ডাক দিল বাঙ্গালার মায়ের বীরপুত্রদের ।
বিজয়সিংহ নাহার, যুগল ঘোষ, ভানু বোস
এবং আখরাগুলোর মিলিত প্রতিরোধে,
জয় মা কালী নিনাদে
কেঁপে উঠলো বিধর্মীদের বুক।
পাল্টা জবাবে পিছু হটল জেহাদিরা।
বেঁচে গেল অবশিষ্ট হিন্দুরা।
বেঁচে রইল কলকাতা,
এক রক্তমাখা দিনের ইতিহাস বুকে নিয়ে।।
আর সুশীল বাঙ্গালী !!
আবার ঘুমিয়ে পড়লো আরও এক ছেচল্লিশের অপেক্ষায়।।

SHARE THIS:

শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

দ্যা নিউজ এর বিশেষ প্রকাশনা

পুরাতন সংবাদ পডুন

SatSunMonTueWedThuFri
   1234
19202122232425
2627282930  
       
   1234
       
282930    
       
      1
       
     12
       
2930     
       
    123
25262728   
       
      1
9101112131415
30      
  12345
6789101112
272829    
       
   1234
2627282930  
       
1234567
891011121314
22232425262728
293031    
       
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৪-২০২০ || এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি
IT & Technical Support: BiswaJit