শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০২:৫০ অপরাহ্ন

সর্বশেষ খবর :
খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে মাগুরায় যুবদলের মানববন্ধন রাজস্ব ঘাটতির শীর্ষে বেনাপোল কাস্টমস ওয়ার্ল্ড হিন্দু ফেডারেশন ও বাগীশিক এর উদ্যোগে ঝিগাতলায় গীতা শিক্ষা নিকেতন উদ্বোধন ভারতে পাচার হওয়া ১০ নারীকে ট্রাভেল পারমিটে বেনাপোলে হস্তান্তর মৌলভীবাজার জেলা হিন্দু ছাত্র মহাজোটের ১০১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন আশাশুনিতে দুর্গোৎসব উপলক্ষে মতবিনিময় সভা শিশু-কিশোরদেরকে আগামী দিনের সৈনিক হিসেবে গড়ে তুলতে হবে -মোস্তাফা জব্বার মুক্তিযুদ্ধের ন্যায় গেরিলা যুদ্ধ করে ষড়যন্ত্রকারীদের নিশ্চিহ্ন করতে হবে -ধর্ম প্রতিমন্ত্রী চিলমারীর মাদক সম্রাট খোকা গ্রেফতার নদীকে নিয়ে কিছু করার এখন সুবর্ণ সুযোগ -নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী

আজ শ্রীকৃষ্ণের জন্মাষ্টমী উদযাপন

রাই-কিশোরীঃ সনাতন ধর্মাবলম্বীর বেশিরভাগ মানুষ শ্রীকৃষ্ণ কে ভগবান শ্রীকৃষ্ণ বলে মানেন। তারা বিশ্বাস করেন, পৃথিবী থেকে দুরাচারী দুষ্টদের দমন আর সজ্জনদের রক্ষার জন্যই এ মহাবতার পৃথিবীতে আবির্ভূত হন। ধর্মগ্রন্থ গীতাও সেই সাক্ষ্য দেয়। হিন্দু পুরাণমতে, কৃষ্ণ দেবকী এবং বাসুদেবের অষ্টম সন্তান ছিলেন তিনি। পুরানো পুঁথির বর্ণনা এবং জ্যোতিষশাস্ত্রের গণনা অনুসারে কৃষ্ণের জন্মর তারিখ হল  খ্রীষ্টপূর্ব ৩২২৮ সালের ১৮ জুলাই ভাদ্র মাসের শুক্লপক্ষের অষ্টম তিথিতে শ্রী কৃষ্ণ জন্ম নেন।  সৌর ভাদ্র মাসের কৃষ্ণপক্ষের অষ্টমী তিথিতে যখন রোহিণী নক্ষত্রের প্রাধান্য হয়, তখন জন্মাষ্টমী পালিত হয়।

হিন্দু ধর্মাবলম্বী বিশেষত বৈষ্ণবদের কাছে জন্মাষ্টমী একটি গুরুত্বপূর্ণ উৎসব। এই উৎসব নানা ভাবে উদযাপন করা হয়। যেমন – ভগবত পুরাণ অনুযায়ী নৃত্য, নাটক যাকে বলা হয় রাসলীলা বা কৃষ্ণ লীলা, মধ্যরাত্রি তে শ্রীকৃষ্ণের জন্মের মুহূর্তে ধর্মীয় গীত গাওয়া, উপবাস, দহি হান্ডি প্রভৃতি।

রাসলীলা তে মূলত শ্রীকৃষ্ণের ছোটবেলার বিভিন্ন ঘটনা দেখানো হয়।

অন্যদিকে দহি হান্ডি প্রথায় অনেক উঁচুতে মাখনের হাড়ি রাখা হয় এবং অনেক ছেলে মিলে মানুষের পিরামিড তৈরি করে সেই হাড়ি ভাঙ্গার চেষ্টা করে। তামিলনাড়ুতে এ প্রথা উড়িয়াদি নামে পরিচিত।

এই দিন মানুষ কৃষ্ণের প্রতি ভালোবাসা ব্যক্ত করার জন্য অভুক্ত থাকে, ধর্মীয় গান গায় এবং উপবাস পালন করে।

শ্রীকৃষ্ণের জন্ম তিথিতে মধ্যরাতে তার কৃষ্ণের ছোট ছোট মূর্তি কে স্নান করিয়ে কাপড় দিয়ে মোছা হয় এবং দোলনায় সাজানো হয়। তারপর উপাসক মন্ডলী নিজেদের মধ্যে খাদ্য ও মিষ্টান্ন বিনিময় করে উপবাস ভঙ্গ করে।

গৃহস্ত মহিলারা বাড়ির বিভিন্ন দরজার বাইরে, রান্নাঘরে শ্রী কৃষ্ণের পদচিহ্ন এঁকে দেন যা শ্রীকৃষ্ণের যাত্রা হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

ঢাকার জন্মাষ্টমীর মিছিল শুরু হয় ঢাকার আনুষ্ঠানিক নগরপত্তন(১৬১০ খ্রি) এরও পূর্বে। ১৫৫৫ সালে রাধাষ্টমীর সময় বংশাল এর নিকটে পিরু মুনশীর পুকুরের পাশে থাকা এক সন্ন্যাসী প্রথম বালক ভক্তদের হলুদ রঙের বসনে সাজিয়ে একটি মিছিল বের করেন। দশ বছর পর রাধাষ্টমীর পরিবর্তে কৃষ্ণের জন্মতিথি জন্মাষ্টমীর নন্দোৎসবের সময় তাদের মিছিলের প্রস্তাব অনুমোদিত হয়। ১৫৬৫ সালে প্রথমবারের মত জন্মাষ্টমীর মিছিল বের হয়। পরবর্তীকালে নবাবপুরের ধনাঢ্য ব্যবসায়ী কৃষ্ণদাস বসাকের উপর মিছিলের দায়িত্ব অর্পিত হয়। কালক্রমে মিছিলটি বেশ জনপ্রিয়তা পায় এবং ঢাকায় জন্মাষ্টমী উদযাপনের একটি অপরিহার্য অঙ্গ হয়ে ওঠে। মুসলমানদের নিকট মিছিলটি ‘বাল গোপালের মিছিল’ নামে পরিচিত ছিল।

১৯৪৭ সালের দেশ বিভাজনের পরে দুবছর বহু প্রতিবন্ধবতার মধ্যে দিয়ে মিছিল করা হয়। তবে ১৯৫০ সালের সাম্প্রদায়িক দাঙ্গার পর মিছিলটি পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যায়। ঢাকার বহু ধনাঢ্য ও মধ্যবিত্ত হিন্দু পরিবার- যারা মিছিলের প্রধান পৃষ্ঠপোষক ছিলেন, তারা ঢাকা ত্যাগ করে চলে যাওয়ায় মিছিল অনুষ্ঠান স্থগিত হয়ে পড়ে। এছাড়া ধর্মান্ধ মুসলিমদের আক্রমণও মিছিল বন্ধের একটি কারণ।

 দিনটি উপলক্ষে আজ ২৩ আগাস্ট শুক্রবার বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক ও ধর্মীয় সংগঠন বিস্তারিত কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। জন্মাষ্টমী উপলক্ষে সরকার আজ সরকারি ছুটি ঘোষণা করেছে। বাংলাদেশ বেতার ও টেলিভিশনসহ বেসরকারি স্যাটেলাইট চ্যানেলে সম্প্রচারিত হবে বিশেষ অনুষ্ঠান।

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণীতে হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রতি জন্মাষ্টমীর শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

শুভ জন্মাষ্টমী উপলক্ষে মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটি ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরে কেন্দ্রীয়ভাবে কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। কর্মসূচি অনুযায়ী, আজ সকালে দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনায় শ্রী শ্রী গীতাযজ্ঞ এবং রাতে শ্রীকৃষ্ণ পূজা অনুষ্ঠিত হবে। এদিন বিকালে ঐতিহাসিক কেন্দ্রীয় জন্মাষ্টমীর মিছিল বের করা হবে।

ভগবান শ্রীকৃষ্ণের শুভ জন্মদিন জন্মাষ্টমী উপলক্ষে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ, মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটি এক বিবৃতিতে- জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে দেশের সব মানুষকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

দি নিউজ এর বিশেষ প্রকাশনা

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন

All rights reserved © -2019
IT & Technical Support: BiswaJit