শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০২:৫২ অপরাহ্ন

সর্বশেষ খবর :
খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে মাগুরায় যুবদলের মানববন্ধন রাজস্ব ঘাটতির শীর্ষে বেনাপোল কাস্টমস ওয়ার্ল্ড হিন্দু ফেডারেশন ও বাগীশিক এর উদ্যোগে ঝিগাতলায় গীতা শিক্ষা নিকেতন উদ্বোধন ভারতে পাচার হওয়া ১০ নারীকে ট্রাভেল পারমিটে বেনাপোলে হস্তান্তর মৌলভীবাজার জেলা হিন্দু ছাত্র মহাজোটের ১০১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন আশাশুনিতে দুর্গোৎসব উপলক্ষে মতবিনিময় সভা শিশু-কিশোরদেরকে আগামী দিনের সৈনিক হিসেবে গড়ে তুলতে হবে -মোস্তাফা জব্বার মুক্তিযুদ্ধের ন্যায় গেরিলা যুদ্ধ করে ষড়যন্ত্রকারীদের নিশ্চিহ্ন করতে হবে -ধর্ম প্রতিমন্ত্রী চিলমারীর মাদক সম্রাট খোকা গ্রেফতার নদীকে নিয়ে কিছু করার এখন সুবর্ণ সুযোগ -নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী

ভারতকে জলশূণ্য করা চিনের পরিকল্পনা ভেস্তে দিয়ে জল সংরক্ষণ করছে ভারত

ভারতকে জলশূণ্য করা চিনের পরিকল্পনা

ব্রহ্মপুত্র নদের গতিপথ ঘুরিয়ে ভারতকে জলশূণ্য করার ছক কষছে চিন৷ কিন্তু চিনের এই পরিকল্পনা যাতে বাস্তবায়িত না হয় সেই কারণে ভারত ব্রহ্মপুত্র নদের জল সংরক্ষণ করার ব্যবস্থা নিয়েছে৷ কেন্দ্রের তরফে জানানো হয়েছে, ব্রহ্মপুত্র নদের বাঁধ থেকে জল ছাড়ার সময়ই সেই জল ভারত নিজেদের জলাধারে সংরক্ষণ করার পরিকল্পনা করছে৷

ভারতকে জলশূণ্য করার পরিকল্পনা যাতে চিনের কোনওভাবেই বাস্তবায়িত না হয় সেই কারণেই এই পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে কেন্দ্র৷ বছরখানেক আগে এই সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। সিদ্ধান্ত মোতাবেক ১.৮বিলিয়ন কিউবিক জল ভারত সংরক্ষণ করার পরিকল্পনা করা হয়েছে৷ কারণ এই ব্রহ্মপুত্র নদের জল থেকেই চারটি হাইড্রোপাওয়ার প্রজেক্টের কাজ চলে৷ যেগুলি রয়েছে অরুণাচল প্রদেশে অবস্থিত সিয়াং, লোহিত, সুবানসিরি এবং দিবাং নদীর উপরে৷ প্রাথমিকভাবে সিয়াংয়ে ১০হাজার মেগাওয়াট প্রোজেক্টের উপর নজর দিচ্ছে কেন্দ্র৷ যেখানে ৯.২ বিলিয়ন জল সংরক্ষণ করার ব্যবস্থা রয়েছে৷ এই রিজারভার অসমের বন্যা নিয়ন্ত্রনে বহুল পরিমাণে সহায়তা করে৷

তিব্বত থেকে চিনের জিনজিয়াং এলাকা পর্যন্ত খোঁড়া হচ্ছে লম্বা ১০০০কিমি সুড়ঙ্গ৷ ব্রহ্মপুত্র নদের জল চিনের তাকলামাকান মরুভূমিতে প্রবেশ করানোই এর মূল লক্ষ৷ তাই ঘুরিয়ে দেওয়া হচ্ছে ব্রহ্মপুত্র নদীর গতিপথ৷ সবকিছু ঠিক থাকে তাহলে এটিই হতে পারে বিশ্বের সবথেকে বড় সুড়ঙ্গ৷ এমনই একটি বিষয় নিয়ে কয়েকদিন আগেই বিতর্ক শুরু হয়৷ কিন্তু চিন এই বিষয়টিকে একেবারেই অস্বীকার করে স্পষ্ট জানিয়ে দিয়ে দিয়েছিল এই ধরণের কোনও পরিকল্পনাই করেনি চিন৷ এটিকে একেবারেই মিথ্যে এবং ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছে চিন৷

তবে, এখানেই উঠছে প্রশ্ন৷ যেখানে চিন স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিয়েছে যে, এই বিষয়টি একেবারেই মিথ্যে সেখানে কেন ফের ভারত ব্রহ্মপুত্র নদের জল সংরক্ষণ করার পরিকল্পনা করছে৷ সেক্ষেত্রে একটি বিষয় বলাই যায়, চিন যাতে কোনওভাবেই ভারতকে সমস্যায় ফেলতে না পারে, সেই কারণে আঁটোসাঁটো ভাবে আগে থেকেই সতর্ক রয়েছে ভারত৷

শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

দি নিউজ এর বিশেষ প্রকাশনা

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন

All rights reserved © -2019
IT & Technical Support: BiswaJit