শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৩:৪৪ অপরাহ্ন

সর্বশেষ খবর :
খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে মাগুরায় যুবদলের মানববন্ধন রাজস্ব ঘাটতির শীর্ষে বেনাপোল কাস্টমস ওয়ার্ল্ড হিন্দু ফেডারেশন ও বাগীশিক এর উদ্যোগে ঝিগাতলায় গীতা শিক্ষা নিকেতন উদ্বোধন ভারতে পাচার হওয়া ১০ নারীকে ট্রাভেল পারমিটে বেনাপোলে হস্তান্তর মৌলভীবাজার জেলা হিন্দু ছাত্র মহাজোটের ১০১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন আশাশুনিতে দুর্গোৎসব উপলক্ষে মতবিনিময় সভা শিশু-কিশোরদেরকে আগামী দিনের সৈনিক হিসেবে গড়ে তুলতে হবে -মোস্তাফা জব্বার মুক্তিযুদ্ধের ন্যায় গেরিলা যুদ্ধ করে ষড়যন্ত্রকারীদের নিশ্চিহ্ন করতে হবে -ধর্ম প্রতিমন্ত্রী চিলমারীর মাদক সম্রাট খোকা গ্রেফতার নদীকে নিয়ে কিছু করার এখন সুবর্ণ সুযোগ -নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী

রাষ্ট্রের চরম অবহেলায় সংস্কৃত ও পালি শিক্ষা কার্যক্রম

সংস্কৃত ও পালি শিক্ষা বোর্ড

উত্তম কুমার রায়ঃ দেশে সব জায়গায় উন্নয়নের ছোঁয়া লাগলেও বঞ্চিত ও অবহেলিত অবস্থায় এখনও রয়েছেন সনাতন পদ্ধতিতে সংস্কৃত ও পালি শিক্ষা কার্যক্রমের প্রতিষ্ঠান,বাংলাদেশ সংস্কৃত ও পালি শিক্ষা বোর্ড।।

১৯১৫ খ্রীস্টাব্দে বঙ্গয় সংস্কৃত পরিষদ নামে যাত্রা শুরু হয় এবং ১৯৪৭ সালে দেশ বিভক্তি হলে তিন ভাগে বিভক্ত হয়,তৎকালীন পাকিস্তান আমলে ইস্ট পাকিস্তান সংস্কৃত সভা নামে পরিচালিত হলে আবারও ১৯৬২ সালে পাকিস্তান সংস্কৃত ও পালি বোর্ড নামে আপ্তপ্রকাশ করে এবং ১৯৭১ সালে বাংলাদেশ স্বাধীন হলে বাংলাদেশ সংস্কৃত ও পালি শিক্ষা বোর্ড নামে বর্তমান পরিচালিত হচ্ছে।। ঐতিহাসিক শিক্ষা এই বোর্ডটি সময়ের ব্যবধানে দেশ ও নাম বদলালেও বদলায়নি ভাগ্যের চাকা।।

১৯৭৩ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সংস্কৃত ও পারি বোর্ডের শিক্ষকদের জাতীয় বেতন কাটামোর আওতায় আনলেও ১৯৭৭ সালে তৎকালীন সাম্প্রদায়িক সরকার জাতীয় বেতন কাটামো থেকে দুরে রেখে তিল তিল করে ধংশের দিকে ঠেলে দেওয়া হয় বোর্ড পরিচালিত কলেজগুলোকে।।বিধায় উন্নতির বদলে অবনতির চাকা ঘুরে বোর্ডের ভাগ্য।।

রাষ্ট্রের চরম অবহেলা বঞ্চনার মাঝেও সারা দেশে ২২৭টি কলেজ ৬১৪ জন অধ্যক্ষ ও অধ্যাপকসহ ৮১৪ কর্মরত আছেন তাদের অকৃত্রিম সেচ্ছাশ্রমে প্রতি বছর ২০ হাজার শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন।।

বিভিন্ন সময়ে সংস্কৃত ও পালি শিক্ষা বোর্ড সরকারের কাছে শিক্ষকদের বেতন বাড়ানোর দাবী ও অনুরোধ করা হলেও সরকার তা কর্নপাত করেনি, হাস্যকর হলেও সত্যি সর্বশেষ ২০১৫ সালে জাতীয় বেতন কাটামোর নির্ধারণের অধ্যক্ষ ও অধ্যাপকের বেতন ১৭৯ টাকা ৪০ পয়সা ও কর্মচারীদের বেতন ৭৮ টাকা মাসিক বেতন নির্ধারিত করা হয়। দেশের সর্বনিম্ন ও নামমাত্র এই বেতনে কোন প্রতিষ্ঠান চলে তা কল্পনার বাইরে।।তবুও প্রাচীন শিক্ষার ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দিতে ৪১ বছর ধরে শিক্ষকরা অক্লান্ত সেচ্ছাশ্রমে প্রতিষ্ঠানের কলেজগুলো চালু রেখেছেন।।

সংস্কৃত ও পালি শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. আব্দুল মান্নান বলেন, ‘শিক্ষা ব্যবস্থাকে আধুনিক করার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে মন্ত্রণালয়ে। শিক্ষকদের জাতীয় বেতন স্কেলে অথবা নির্ধারিত বেতনের আওতায় আনার প্রস্তাবনা রয়েছে। পাঠ্যসূচি ও পাঠ্যক্রম পরিমার্জনের প্রস্তাবও দেওয়া হয়েছে। এই শিক্ষা ব্যবস্থাকে আধুনিক করতে মাউশির গঠন করা কমিটির সুপারিশ অনুযায়ী আমরা প্রস্তাব করেছি।’

সংস্কৃত ও পালি শিক্ষা বোর্ডের সচিব অধ্যাপক নিরঞ্জন অধিকারী বলেন, ‘প্রাচীন ঐতিহ্য ধরে রাখতেই কোনোরকমে এই শিক্ষা ব্যবস্থা টিকিয়ে রাখা হয়েছে। আমরা বিভিন্ন সময় সরকারের কাছে শিক্ষকদের বেতন বাড়ানোর প্রস্তাব দিয়েছি। এই শিক্ষাকে মূলধারায় নিতে আমাদের প্রস্তাবের পক্ষে মত রয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি)। ১৯৯৬ সালে সংস্কৃত ও পালি শিক্ষাকে আধুনিক করার জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে সুপারিশ করেছিল ইউজিসি। কিন্তু সেটি এখনও সেভাবেই পড়ে আছে।’

সংস্কৃত ও পালি শিক্ষা বোর্ড রাজধানীর বাসাবো বৌদ্ধ মন্দিরের ভেতরে মন্দিরের একটি ভবনের দুটি রুম নিয়ে এর কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। শুধু রক্ষণাবেক্ষণের খরচ দিয়ে বিনা ভাড়ায় চলছে স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানটি। পদাধিকারবলে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের (মাউশি) মহাপরিচালক সংস্কৃত ও পালি শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান। শিক্ষা বোর্ডের অবৈতনিক সচিব ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সংস্কৃত বিভাগের অধ্যাপক নিরঞ্জন অধিকারী। এছাড়াও একজন উপ-সচিব, একজন হিসাবরক্ষকসহ বোর্ডে ১০ জন জনবল আছেন।

শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

দি নিউজ এর বিশেষ প্রকাশনা

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন

All rights reserved © -2019
IT & Technical Support: BiswaJit