বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১২:৪৮ অপরাহ্ন

সর্বশেষ খবর :
দীর্ঘ ২৮ বছর পর সরাসরি ভোটে নির্বাচিত হলো ছাত্রদলের নতুন নেতৃত্ব: সভাপতি খোকন আর সম্পাদক শ্যামল মোটর সাইকেলে তুলে নিয়ে শ্রমিককে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন বাজারে আসছে 6000mAh ব্যাটারির স্যামসং ফোন, দাম সাধ্যের মধ্যেই প্রাথমিক শিক্ষার পড়ুয়াদের ৬৫ শতাংশ বাংলাই ঠিকমতো জানে না মেহেরপুরে নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন ৩ নারীসহ আল্লাহর দলের ৮ সদস্য আটক নবীগঞ্জে বিপুল পরিমাণ অতিথি পাখিসহ ৫ পাখি শিকারী র‌্যাবের খাঁচায় বন্দি, ভ্রাম্যমান আদালতে ৪ মাসের জেল ‘Howdy, Modi’ meeting in Houston Trump & Modi Joint Rally? নবীগঞ্জ উপজেলা সৎসঙ্গের উদ্যোগে ঠাকুর অনুকুল চন্দ্রের ১৩২ তম শুভ আর্বিভাব দিবস পালন ভোলায় ৫০বছরের পুরনো কবরে অক্ষত লাশ! উন্নত দেশ গড়তে ব্যবসায়ীদের অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে -বাণিজ্যমন্ত্রী

ভারতের অধীনেই কাশ্মীর, আর্টিকেল ৩৭০ ও ৩৫এ প্রত্যাহা্র

অবশেষে কাশ্মীর ভারতের

পাকিস্তানের অধীনস্ত কাশ্মীর থেকে 370 ধারা প্রত্যাহারে ভারতের অধীনে হয়ে গেল কাশ্মীর। আজ সোমবার ৫ অগাস্ট কাশ্মীর ভারতের৷ বিজেপি নেতা মুকুল রায়, বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায় এবং বিজেপি নেত্রী রূপা গঙ্গোপাধ্যায় ট্যুইট করে অভিনন্দন জানান।

তবে প্রত্যেক বিজেপি নেতা নেত্রীর বক্তব্যেই উঠে এসেছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের প্রতি অভিনন্দন বার্তা৷ তবে আরও একটি প্রসঙ্গ উঠে এসেছে তাঁদের বার্তায়৷ মুকুল রায়ের মতে, সোমবার ভারতের ইতিহাসে ঐতিহাসিক দিন৷ একজন ভারতীয় হিসেবে সর্বোপরি একজন বাঙালি হিসেবে গর্ব বোধ করছি৷ ডঃ শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের স্বপ্ন সফল হল এতদিনে৷

সোমবার বেলা বারোটা নাগাদ ট্যুইট করেন বিজেপি সাংসদ লকেট চ্যাটার্জ্জী৷ তিনি লেখেন আজ ঐতিহাসিক দিন৷ প্রত্যেক ভারতবাসীর স্বপ্ন সফল করার জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও অমিত শাহজীকে ধন্যবাদ৷ এদিন ডঃ শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জ্জীর স্বপ্ন সফল হল৷ লকেট বলেন জাহা হুয়ে বলিদান মুখার্জ্জী, ওহ কাশ্মীর হামারা হ্যান৷

কাশ্মীরের  এই অবস্থার জন্য প্রধান কারন আর্টিকেল 370 এবং আর্টিকেল 35A. কাশ্মীরকে এই বিশেষ রাজ্যের তকমা দিয়েছে ভারতের সংবিধান। 14 ই মে 1954 তে তৎকালীন রাষ্ট্রপতি রাজেন্দ্রপ্রসাদ আর্টিকেল 35A কে যুক্ত করে সংবিধানে।

আর্টিকেল 35A আর্টিকেল 370 এর একটি অংশ। সংবিধানে কোন অনুচ্ছেদ যুক্ত করতে হলে সাংসদদের দ্বারা সংশোধনের মাধ্যমে যুক্ত করতে হয় কিন্তু তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী জহরলাল নেহেরুর সরকার এই প্রস্তাব সংসদের সামনে রাখেই নি, সোজা রাষ্ট্রপতি ভবনে পাঠিয়ে দেয়। রাষ্ট্রপতি রাজেন্দ্রপ্রসাদ প্রেসিডেন্সিয়াল অর্ডার এর মাধ্যমে একে সংবিধানে যুক্ত করে।

ARTICLE 35A

আর্টিকেল 35 অনুযায়ী ভারতের কোন নাগরিক জম্মু কাশ্মীরে সম্পত্তি কিনতে পারবে না, বাড়ি তৈরি করতে পারবে না কিন্তু কাশ্মীরের নাগরিকরা ভারতের যে কোন রাজ্যে জায়গা কিনতে পারবে। আর্টিকেল 35A অনুযায়ী জম্মু কাশ্মীরে জন্ম হলে তবেই কাশ্মীরের স্থায়ী নাগরিকত্ব পাওয়া যাবে। তবে তার জন্য নিয়ম আছে। ১৯৫৪ সালে ১৪ ই মে এর ১০ বছর আগে থেকে সেই রাজ্যে বাস করছে এমন লোকই কাশ্মীরের স্থায়ী নাগরিক।

1947 সালে পশ্চিম পাকিস্তান থেকে এসে প্রায় 5764 পরিবার এখানে আশ্রয় নেয় যার 85% হিন্দু ও শিখ। কিন্তু আর্টিকেল 35A অনুযায়ী তাদের সন্তানরা আজও কাশ্মীরে সরকারি চাকরি করতে পারে না। কারন আর্টিকেল 35A অনুযায়ী তারা কাশ্মীরের বাসিন্দাই নয়। কোন সরকারি সুবিধা তারা পায় না। তারা লোকসভা ভোটে ভোট দিতে পারে কিন্তু পঞ্চায়েত ভোটে অংশ নিতে পারে না।

আর্টিকেল 35A অনুযায়ী জম্মু কাশ্মীরের কোন মেয়ে যদি ভারতের অন্য রাজ্যের কোন ছেলে কে বিয়ে করে তাহলে তার কাশ্মীরের নাগরিক হিসাবে সমস্ত বিশেষ অধিকার থাকবে না।

ARTICLE 370

আর্টিকেল 370 অনুযায়ী ভারতের রাষ্ট্রপতির ও ক্ষমতা নেই কাশ্মীরের সংবিধান কে বরখাস্ত করার। আর্টিকেল 370 অনুযায়ী জম্মু কাশ্মীরের জাতীয় পতাকা ভারতের জাতীয় পতাকার থেকে আলাদা এবং এখানে আর্টিকেল 370 অনুযায়ী ভারতের জাতীয় পতাকা কে অপমান করা কোন অপরাধ নয়।

আর্টিকেল 370 অনুযায়ী জম্মু কাশ্মীরে IPC( Indian pinal code) কাজ করে না, এখানে RPC( Ranbir pinal code) অনুযায়ী সমস্ত কাজ হয়। ভারতের সমস্ত রাজ্যে বিধানসভার মেয়াদ পাঁচ বছর কিন্তু কাশ্মীরের বিধানসভার মেয়াদ ছয় বছর। আর্টিকেল 370 অনুযায়ী কাশ্মীরের লোকেদের দ্বিনাগরিকত্ব রয়েছে একটি ভারতের এবং আরেকটি কাশ্মীরের। আর্টিকেল 370 অনুযায়ী এখানে হিন্দু ও শিখরা সংখ্যালঘু হওয়া সত্ত্বেও কোন সংরক্ষণ ও সুবিধা পায় না।

জহরলাল নেহেরু ও শেখ আবদুল্লার এই আর্টিকেল 370 ও আর্টিকেল 35A প্রবর্তনের তীব্র বিরোধিতা করেছিলেন।
জম্মু কাশ্মীরের 370 ধারা নিয়ে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী জহরলাল নেহেরুর সঙ্গে মতবিরোধ হয় ডঃ শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জ্জীর৷ মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করেন শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জ্জী৷ তাঁর মত ছিল এক প্রজাতন্ত্রের মধ্যে আরেক প্রজাতন্ত্র থাকতে পারে না৷ সেই মতের সঙ্গে সহমত হননি তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী নেহেরু৷ পরবর্তীতে শ্যামাপ্রসাদ দক্ষিণপন্থী প্রজা পরিষদ গঠন করেন৷ তাঁর দাবি নিয়ে আন্দোলন শুরু করেন তিনি৷

শ্যামাপ্রশাদ মুখারজী

শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় জোর করে কাশ্মীরে প্রবেশ করেছিলেন। মুখে আসমূদ্রহিমাচল ভারতের জন্য সেই অমর দাবী “এক নিশান, এক বিধান, এক প্রধান”। তখন নিয়ম ছিল ভারত সরকারের পারমিট ছাড়া কাশ্মীরে প্রবেশ করা যাবে না। 20 জুন 1953 তে শ্রীনগরের রহস্যময় ভাবে  মৃত্যু হয় শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের।

এদিন ট্যুইট করেন বিজেপি নেত্রী রূপা গঙ্গোপাধ্যায়ও৷ তিনিও তুলে ধরেন ডঃ শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জ্জীর আত্মবলিদানের কথা৷ লকেটের সুরেই তিনি বলেন জাহা হুয়ে বলিদান মুখার্জ্জী, ওহ কাশ্মীর হামারা হ্যান৷

 


শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

দি নিউজ এর বিশেষ প্রকাশনা

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন

All rights reserved © -2019
IT & Technical Support: BiswaJit