সোমবার, ১৯ অগাস্ট ২০১৯, ১০:০৮ অপরাহ্ন

সর্বশেষ খবর :
বিলুপ্ত ছিটমহল দাসিয়ারছড়া এখন আলোকিত জনপদ কালীগঞ্জ উপজেলা আইনশৃংখলা কমিটির মাসিক সভা অনুষ্টিত ঝিনাইদহ কালীগঞ্জে ২০১৯-২০ অর্থ বছরে রাজস্ব খাতের আওতায় মাছের পোনা অবমুক্ত ফরিদপুরে ডেঙ্গু রোগে ইমামের মৃত্যু বেনাপোল পৌর বিএনপি সভাপতি নাজিম নারীসহ গ্রেফতার বেগম জিয়ার দুর্নীতির গন্ধ ছড়াবে এবার বিদেশেও -তথ্যমন্ত্রী জনগণের চাহিদা পূরণে আন্তরিক হয়ে কাজ করুন -বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী একুশে আগষ্ট গ্রেনেড হামলার দন্ডপ্রাপ্ত আসামীদের রায় কার্যকরের দাবীতে মানববন্ধন সালথায় মাছের পোনা অবমুক্তকরণ মন্ত্রিপরিষদে সরকারি ভেঞ্চার ক্যাপিটাল কোম্পানি “স্টার্টআপ বাংলাদেশ লিমিটেড” এর অনুমোদন

ফরিদপুরে ৫০ টি গ্রাম প্লাবিত, ৫৮টি বসতঘর নদীগর্ভে বিলীন

ফরিদপুরে ৫০ টি গ্রাম প্লাবিত, ৫৮টি বসতঘর নদীগর্ভে বিলীন

আবু নাসের হুসাইন, নিজস্ব প্রতিবেদকঃ গত ৩৬ ঘন্টায় ফরিদপুরে পদ্মা নদীর পানি বেড়ে বিপদসীমার ৪৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। ফলে ফরিদপুর সদর, চরভদ্রাসন, সদরপুর ও ভাঙ্গা উপজেলার (কিছু অংশ) পদ্মা পাড়ের নিম্নাঞ্চলের মানুষ পানিবন্দী হয়ে পড়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত পাওয়া খবর অনুযায়ী জেলার সদর উপজেলা, চরভদ্রাসন ও সদরপুর উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নের ৫০টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। পানিবন্দী হয়ে পড়েছে প্রায়ই ১৫ হাজার পরিবার।

শহরতলীর সাদীপুর এলাকার কাদেরের বাজার পয়েন্টে বাধ অতিক্রম করে নতুন কয়েকটি গ্রামে পানি প্রবেশ করেছে। বন্যায় ফরিদপুর সদর উপজেলার নর্থ চ্যানেল, ডিগ্রিরচর, চরমাধবদিয়া ও আলিয়াবাদ এবং চরভদ্রাসন উপজেলার চরঝাউকান্দা, হাজিগঞ্জ, চরহরিরামপুর ও গাজিরটেক, সদরপুর উপজেলার চরনাছিরপুর, দিয়ারা নারিকেলবাড়িয়া, ঢেউখালী ও চরমানাইর ইউনিয়নের বসতবাড়ী, কয়েক হাজার একর বিস্তীর্ণ ফসলী জমি, রাস্তাঘাট ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান তলিয়ে গেছে। এছাড়া সদরপুর উপজেলার ৪৪টি ও ভাঙ্গা উপজেলায় ১৪টি বসতবাড়ি গত দুদিনে নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে।

ফরিদপুর পানি উন্নয়ন বোর্ড সুত্রে জানা যায় , বুধবার বিপদসীমার ১০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে বৃহস্পতিবার আরও ৩৫ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পাওয়ায় বর্তমানে বিপদসীমার ৪৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। প্রবল কবলিত এলাকা চিহ্নিত করে সেখানে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নিয়ে বন্যা দুর্গত মানুষের পাশে কাজ করছে পানি উন্নয়ন বোর্ড।

ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক অফিস থেকে জানান, এরমধ্যে সদর উপজেলায় ১৫ টন, চরভদ্রাসন উপজেলায় ১০ টন, সদরপুর উপজেলায় ১৫ টন ও ভাঙ্গা উপজেলায় ২ টন মোট ৪২ টন পাঠানো হয়েছে।

এছাড়া জেলা প্রশাসন তাদের ত্রাণের জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে। চাহিদা অনুযায়ী দুর্গতদের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ করা হবে। ফরিদপুর সদরসহ ৪টি উপজেলার আশ্রয় কেন্দ্র খুলে দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া দিয়েছেন। পাশাপাশি উঁচুস্থানে থাকা স্কুল-মাদরাসা খোলা রাখতে বলা হয়েছে। চার উপজেলার সকল সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীর ছুটি বাতিল করা হয়েছে। এছাড়া ৯২টি মেডিকেল টিম প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

দি নিউজ এর বিশেষ প্রকাশনা

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন

© All rights reserved © 2019  
IT & Technical Support: BiswaJit