মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০১৯, ০৪:৫৫ অপরাহ্ন

আইন প্রশাসন নয় যোগাভ্যাসে মানুষের মনের পরিবর্তন ঘটে

যোগ সভা, আন্তর্জাতিক যোগ দিবস

রাই কিশোরীঃ  আইন কিংবা ঔষধ প্রয়োগে মানুষের মনের পরিবর্তন ঘটানো সম্ভব নয়, যোগাভ্যাসেই খারাপ মানুষকে ভালো মানুষে পরিবর্তন করানো সম্ভব। বললেন আনন্দম্‌ ইনস্টিটিউট অভ যোগ এণ্ড যৌগিক হস্‌পিটাল এর পরিচালক যোগী পিকেবি প্রকাশ।

আজ ২১ জুন ২০১৯ইং শুক্রবার বিকেল ৩ ঘটিকায় বাংলা একাডেমীর কবি শামসুর রাহমান সেমিনার কক্ষে “আদর্শ জীবন গঠনে যোগাভ্যাসের ভূমিকা” শীর্ষক যোগ সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, দুর্নীতিবাজ, হত্যাকারী কিংবা কালোবাজারী হলেই তিনি খারাপ মানুষ নন, তার ভিতরের গ্লান্ড দুষিত হয়েছে বলিয়াই তিনি খারাপ কাজ করিতেছে। আইন কিংবা প্রশাসনের শাস্তি দিয়ে তাকে ভালো বানানো সম্ভব নয়, তবে যৌগিক চিকিৎসা পদ্ধতিতে তাকে ভালো মানুষে পরিবর্তন করা যায়, তখন তাকে দিয়ে জোর করেও খারাপ কাজ করা সম্ভব নয়।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য জনাব মুকুল বোস বলেন, যোগ প্রাচীনতম চিকিৎসা পদ্ধতি যা সারাবিশ্ব স্বীকৃত। এর প্রচারে সহযোগিতা করবেন বলে তিনি আশ্বাস প্রদান করেন।

স্বাগত বক্তব্যে চির তরুণ শ্রী ধীরেন্দ্র নাথ বারুরী বলেন, আমার জানামতে ছেলেবেলা থেকে কখনো মাছ, মাংস, ডিম, পেয়াজ, রসুন খাইনি, তবুও কোন প্রকার ঔষধ ছাড়াই যোগ ব্যায়ামের কারণে ৭৫ বছরেও সুস্থ আছি।

যোগ বিষয়ে ডক্টরেট ডিগ্রিধারী এডভোকেট জে কে পাল বলেন, যোগ এর আলোচনা ব্যাপক, ব্যায়াম শুধুমাত্র যোগের একটা অংশ। ব্যায়ামে শুধুমাত্র শরীরের কিছু উপকারিতা আসে কিন্তু আধ্যাত্মিক উন্নতির জন্য প্রয়োজন যোগাভ্যাস। ব্যায়ামের চেয়ে প্রাণায়ামের উপকারিতা অনেকগুন বেশি।  

বাংলাদেশ বুদ্ধিস্ট ফেডারেশনের সহ-সভাপতি ভদন্ত বুদ্ধানন্দ মহাথেরো বলেন, ব্যায়াম নয় ধ্যানের দ্বারা আধ্যাত্মিক উন্নতি সম্ভব। বসে, শুয়ে, দাড়িয়েও ধ্যান করা যায়।

ইন্টার রিলিজিয়াস রাইটার এণ্ড জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের সভাপতি মিঃ চিত্ত ফ্রান্সিস রিবেরু বলেন, যিশুর স্মৃতি তোমার শ্বাস প্রশ্বাসের সহিত বিজরিত থাকলে তখনই তুমি জানিতে পারিবে হেসিখিয়ার উপযোগিতা, সেই মুহুর্তেই প্রাণায়ামপরায়ণ এক আপ্তকাম মহাযোগীকে চিনিতে আমার ভুল হয় না। অর্থাৎ খ্রীষ্টীয় ধারণায় যোগাভ্যাসের গুরুত্ব কোন অংশ কম নয়।

ইসলামী চিন্তাবিদ ও মতিঝিল মসজিদ ওয়াক্‌ফ এস্টেট এর সভাপতি বলেন, যোগ ব্যায়াম শুধুমাত্র হিন্দুদের নয় এটা সকল মানুষের জীবনের সাথে প্রাত্যাহিকভাবে জড়িত। প্রাণায়ামই মুসলিম ধর্মের একমাত্র দশম দরজায় প্রবেশ করিবার পথ ও সেই অবস্থায় ঈশ্বরের সাক্ষাৎ ও মুক্তিলাভ হইয়া থাকে।

উক্ত যোগ সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা মণ্ডলীর সদস্য জনাব শ্রী মুকুল বোস, বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন বাংলাদেশ বুদ্ধিস্ট ফেডারেশনের সহ-সভাপতি ভদন্ত বুদ্ধানন্দ মহাথেরো, ইন্টার রিলিজিয়াস রাইটার এণ্ড জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন এর সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা চিত্ত ফ্রান্সিস রিবেরু, বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ ও মতিঝিল মসজিদ ওয়াক্‌ফ স্টেট এর সভাপতি জনাব কাজী মাসুদ আহম্মেদ, সম্মানিত অতিথি ভারত সেবাশ্রম সংঘ ঢাকা অধ্যক্ষ স্বামী সংগীতানন্দ মহারাজ এবং বিশেষ আলোচক বিশিষ্ট যোগ বিশারদ ডঃ জে কে পাল এবং এডভোকেট সুনীল বিশ্বাস।

স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন ধর্মীয় চিন্তাবিদ যোগ বিশারদ শ্রী ধীরেন্দ্র নাথ বারুরী। যোগ সভা সঞ্চালনা করেন লিটন কৃষ্ণ দাস ও রাইকিশোরী চৌধুরী।

সভাপতিত্ব করেন আনন্দম্‌ ইনস্টিটিউট অভ যোগ এণ্ড যৌগিক হস্‌পিটাল এর পরিচালক যোগী পিকেবি প্রকাশ(প্রমিথিয়াস চৌধুরী)।

শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

দি নিউজ এর বিশেষ প্রকাশনা

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন

© All rights reserved © 2019  
IT & Technical Support: BiswaJit