সোমবার, ১৭ জুন ২০১৯, ০৬:৫২ অপরাহ্ন

সর্বশেষ খবর :
ভারতে পাচার ৬ বাংলাদেশী নারী, শিশুকেস্বদেশ প্রত্যাবাসনে বেনাপোলে হস্তান্তর ছাতকের বাগবাড়ী প্রাথমিকবিদ্যালয়ে বঙ্গবন্ধু কর্ণার উদ্বোধন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে আবার নির্বাচন দিতে হবে : ফখরুল নির্বাচিত সংসদকে যারা অবৈধ বলে তারাই অবৈধ- কাদের বিকাশ-রকেটের ব্যালেন্স জানতে খরচ হবে ৪০ পয়সা বিশ্বকাপ সাতটি ম্যাচেই পাকিস্তানের বিরুদ্ধে জয় ভারতের মুকুলের হাত ধরেই বিজেপিতে তৃণমূল বিধায়কসহ বহু কাউন্সিলর বিজেপিতে যোগ দিলেন সাত শতাধিক তৃণমূল নেতাকর্মী জনস্বাস্থ্য, নগর উন্নয়ন ও পল্লী উন্নয়নে সুইজারল্যান্ডের ভূমিকা উৎসাহব্যঞ্জক -স্থানীয় সরকার মন্ত্রী নারী নির্যাতন জাতীয় উন্নয়নের পথে সবচেয়ে বড় বাধা -আইনমন্ত্রী

শিক্ষার্থী রাজিব-দিয়ার মৃত্যু তদন্ত কর্মকর্তার দ্বিতীয় দিনের সাক্ষ্য গ্রহণ

শিক্ষার্থী রাজিব-দিয়ার মৃত্যু তদন্ত কর্মকর্তার দ্বিতীয় দিনের সাক্ষ্য গ্রহণ

বিশেষ প্রতিবেদক অসিত কুমার ঘোষ (বাবু)ঃ শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থী রাজিব-দিয়ার বাস চাপায় মৃত্যুর মামলায় তদন্তকারী কর্মকর্তা ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (উত্তর) পুলিশের ইন্সপেক্টর কাজী শরিফুল ইসলামের সাক্ষ্য গ্রহণ অব্যাহত রয়েছে।

বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কেএম ইমরুল কায়েশ এ সাক্ষীর দ্বিতীয় কার্যদিবস সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে আগামী ২৫ জুন অবশিষ্ট সাক্ষ্য গ্রহণের দিন ধার্য করেছেন।

মামলায় তিনি গত ৫ মে আদালতে প্রথম সাক্ষ্য দেন। এর আগে এ মামলায় আরও ২৬ জনের সাক্ষ্য দিয়েছেন। গত বছর ৪ নভেম্বর থেকে এ মামলায় সাক্ষ্য গ্রহণ শুরু হয়।

মামলাটিতে আসামী জাবালে নুরের ঘাতক বাসের চালক মাসুম বিল্লাহ (৩০), হেল্পার মো: এনায়েত হোসেন (৩৮) ও চালক মো: জোবায়ের সুমন (৩৬) কারাগারে রয়েছেন। মামলার অপর ২ আসামী বাস মালিক মো: জাহাঙ্গীর আলম (৪৫) ও হেল্পার মো: আসাদ কাজী (৪৫) পলাতক রয়েছেন। মামলার অপর আসামী ঘাতক বাসের মালিক মো: শাহদাত হোসেন আকন্দের অংশের বিচার হাইকোর্টের আদেশে স্থগিত রয়েছে।

মামলায় গত বছর ২৫ অক্টোবর আসামীদের বিরুদ্ধে চার্জগঠন করেন। এর আগে গত ৬ সেপ্টেম্বর আসামীদের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করেন ডিবি পুলিশ।
মামলায় বলা হয়, গত ২৯ জুলাই জাবালে নূর পরিবহনের দুইটি গাড়ী বেপরোয়া ভাবে চালিয়ে একটি বাস জিল্লুর রহমান ফøাইওভারের ঢালে রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের ১৪/১৫ জন ছাত্র ছাত্রীর উপর তুলে দেয়। যার কারণে ১৩/১৪ জন ছাত্র ছাত্রী গুরুত্বর আহত হয়। যাদের মধ্যে উক্ত কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী দিয়া খানম মিম ও বিজ্ঞান বিভাগের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র আব্দুল করিম রাজীব মারা যায়। গত ২৯ জুলাই দিবাগত রাতে ক্যান্টনমেন্ট থানায় নিহত একাদশ শ্রেণির ছাত্রী দিয়া খানম মিমের বাবা জাহাঙ্গীর আলম এ মামলা দায়ের করেন।

শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

দি নিউজ এর বিশেষ প্রকাশনা

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন

© All rights reserved © 2019  
IT & Technical Support: BiswaJit