বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন ২০১৯, ১০:৫৪ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ খবর :
শার্শা’র গোগা ইউনিয়নের কালিয়ানি ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিল অনুষ্ঠিত নবীগঞ্জ পৌরসভার কর মেলা উদ্বোধন শুধু জঙ্গিদের নয়, জঙ্গিবাদকেই দমন করতে হবে -মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা ফুটবলের সেমি ফাইনাল অনুষ্ঠিত আশাশুনিতে মাদকের অপব্যবহার ও পাচার বিরোধী র‌্যালী ও সভা রেলওয়ে স্টেশনে তেলে ট্যাঙ্কারবাহী ট্রেন আটকা জনদুর্ভোগ চরমে সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ডিজিটাল হাজিরা শুরু ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর ৬ শতাধিক শিক্ষার্থীদের মাঝে ৯ লক্ষাধিক টাকার শিক্ষাবৃত্তি ও অনুদান প্রদান প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে গাছ কাটা ও বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ বেনাপোল কাস্টমসে স্কানিং মেশিন অচল

মাতৃভাষায় সর্বোচ্চস্তর পর্যন্ত শিক্ষা চায় আরএসএস

মাতৃভাষায় সর্বোচ্চস্তর পর্যন্ত শিক্ষা চায় আরএসএস

বিপুল জনসমর্থন পেয়ে দ্বিতীয়বারের জন্য প্রধানমন্ত্রীর শপথ নিয়েছেন নরেন্দ্র মোদী৷ এনডিএন২-এ মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রীর দায়িত্ব পেয়েছেন সংঘ ঘনিষ্ঠ রমেশ পোখরিয়াল নিশঙ্ক৷ শপথ নেওয়ার পর তাঁর কাছে নতুন শিক্ষানীতির একটি খসড়া জমা পড়ে৷ যেখানে ভারতের প্রতিটি রাজ্যে তিনটি ভাষা শেখানোর কথা বলা হয়েছে৷ পাশাপাশি অষ্টম শ্রেণী পর্যন্ত হিন্দি বাধ্যতামূলক করার কথা বলা হয়েছে৷

বিরোধীদের অভিযোগ হিন্দি বাধ্যতামূলক করার পেছনে আসলে সংঘের চাপ রয়েছে৷ এবিষয়ে জানতে চাওয়া হলে দক্ষিণবঙ্গ আরএসএসের এক শীর্ষ প্রচারক বলেন, ‘‘পুরো বিষয়টায় মিথ্যে৷ আরএসএস সবসময় মাতৃভাষাকে গুরুত্ব দেওয়ার কথা বলেছে৷ এখনও তাই বলছে৷’’

২০১৮ সালে নতুন শিক্ষানীতি নিয়ে আরএসএস সরসংঘ চালক মোহন ভাগবতজীর বক্তব্য ছিল, কোনও বিদেশি ভাষা নয়, ভারতীয় দর্শণ এবং সংস্কৃতির প্রতিফলন ঘটে এরকম কোনও ভাষাকে উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে গুরুত্ব দিতে হবে৷ এরপরই ২০১৯-এ অষ্টম শ্রেণী পর্যন্ত হিন্দি বাধ্যতামূলক করার খসড়া আসায় বিশেষজ্ঞরা মনে করেছেন এর পেছনে আসলে আরএসএস রয়েছে৷ নয়া শিক্ষানীতির এই খসড়া সামনে আসার পরই দক্ষিণের অ-হিন্দিভাষী রাজ্যগুলি সহ পশ্চিমবঙ্গেও এর বিরোধিতা শুরু হয়৷ টুইটারে ‘স্টপ হিন্দি ইমপোজ’ হ্যাসট্যাগও চালু হয়৷

বিরোধীদের অভিযোগ অষ্টম শ্রেণী পর্যন্ত হিন্দি বাধ্যতামূলক আসলে আরএসএসের ‘হিন্দি হিন্দু হিন্দুস্থান’ আদর্শেরই অঙ্গ৷ এভাবেই ধাপে ধাপে ভারতকে ক্রমশ হিন্দুরাষ্ট্রর বাননোর দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে চায় আরএসএস৷ এই সব অভিযোগকে সরাসরি মিথ্যে দাবি করে দক্ষিণবঙ্গ আরএসএস-এর শীর্ষ প্রচারক বলেন, ‘‘২০১৫ সালে অখিল ভারতীয় প্রতিনিধি সভাতে (আরএসএস কার্যকর্তাদের সভা) প্রস্তাব নেওয়া হয়েছিল সর্বোচ্চস্তর পর্যন্ত মাতৃভাষায় শিক্ষার ব্যবস্থা করতে হবে৷ রাজনৈতিক উদ্দেশ্য নিয়েই আরএসএসের বিরুদ্ধে মিথ্যে কথা প্রচার করা হচ্ছে৷ আমরা কারও উপর কোনও কিছু চাপিয়ে দেওয়ার পক্ষপাতি নই৷’’

নতুন শিক্ষানীতির খসড়া যেটি নিয়ে এত বিতর্ক সেটি তৈরি করেছে প্রাক্তন কস্তুরীরঙ্গন কমিটি৷ যার প্রধান ইসরোর প্রাক্তন চেয়ারম্যান কৃষ্ণস্বামী কস্তুরীরঙ্গন৷ নতুন খসড়া অনুযায়ী, স্কুল শিক্ষায় তিনটি ভাষা শেখানোর প্রয়োজনীয়তার কথা বলা হয়েছে৷ এই খসড়া অনুসারে হিন্দিভাষী রাজ্যে হিন্দি, ইংরেজির পাশাপাশি ছাত্রছাত্রীরা যে কোনও ভাষা বেছে নিতে পারে৷ অ-হিন্দিভাষী রাজ্যের জনগন মাতৃভাষা, ইংরেজির পাশাপাশি অষ্টম শ্রেণী পর্যন্ত হিন্দি পড়বেন৷ বিশেষজ্ঞদের মতে সারাদেশে সংযোগকারী দেশীয় ভাষা হিসেবে হিন্দিকে তুলে ধরার উদ্দেশ্য নিয়েই এই নয়া শিক্ষানীতির খসড়া তৈরি করা হয়েছে৷

তবে এনডিএর শরিক দল এডিএমকে এবং পিএমকে সহ দক্ষিণী রাজ্যগুলির চাপের মুখে অষ্টম শ্রেণী অবধি হিন্দি বাধ্যতামূলক করার বিষয়টি খসড়াপত্র থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে৷ কেন্দ্রের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে কারও উপর হিন্দি চাপাতে চায় না তারা৷ কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নির্মলা সীতারমন এবং জয়শঙ্কর এ-নিয়ে তামিল ভাষায় টুইটও করেন৷

শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

দি নিউজ এর বিশেষ প্রকাশনা

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন

© All rights reserved © 2019  
IT & Technical Support: BiswaJit