বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন ২০১৯, ১০:১৩ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ খবর :
শার্শা’র গোগা ইউনিয়নের কালিয়ানি ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিল অনুষ্ঠিত নবীগঞ্জ পৌরসভার কর মেলা উদ্বোধন শুধু জঙ্গিদের নয়, জঙ্গিবাদকেই দমন করতে হবে -মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা ফুটবলের সেমি ফাইনাল অনুষ্ঠিত আশাশুনিতে মাদকের অপব্যবহার ও পাচার বিরোধী র‌্যালী ও সভা রেলওয়ে স্টেশনে তেলে ট্যাঙ্কারবাহী ট্রেন আটকা জনদুর্ভোগ চরমে সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ডিজিটাল হাজিরা শুরু ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর ৬ শতাধিক শিক্ষার্থীদের মাঝে ৯ লক্ষাধিক টাকার শিক্ষাবৃত্তি ও অনুদান প্রদান প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে গাছ কাটা ও বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ বেনাপোল কাস্টমসে স্কানিং মেশিন অচল

বাগেরহাটে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে বিক্ষোভ

বাগেরহাটে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধেষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে বিক্ষোভ

শেখ সাইফুল ইসলাম কবির.সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টার,বাগেরহাট : বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জের জিউধরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম বাদশার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে বিক্ষোভ করেছেন এলাকার ভিজিডি কার্ডের সুবিধাভোগীরা। একটি স্বার্থান্বেশী মহল কর্তৃক চাল আত্মসাতের কাল্পনিক অভিযোগের প্রতিবাদে রবিবার সকালে ইউনিয়ন পরিষদের অস্থায়ী কার্যালয়ের সামনে কাকড়াতলী বাজারে বিপদাপন্ন নারীদের উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায়(ভিজিডি) সুবিধাভোগীরা এ বিক্ষোভ করেন।

গত ৫ মে ইউনিয়নের ২শ’ ৬০ জন ভিজিডি সুবিধাভোগীদের মাঝে ৩ মাসের চাল একত্রে বিতরণ করা হয়। কার্ডেও ৩ মাসের স্বাক্ষর নেওয়া হয়। এক মাসের চাল পরবর্তীতে বিতরণ করা হবে বলে জানিয়ে দেন চেয়ারম্যান। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ইউপি সদস্য সাইদুল ইসলাম, শহিদুল ইসলাম ও মোশারেফ হোসেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সহ বিভিন্ন দপ্তরে চাল আত্মসাতের অভিযোগ দায়ের করেন।

এ অভিযোগের কথা জানতে পেরে ক্ষুব্ধ হয়েছেন সংশ্লিষ্ট ট্যাগ অফিসার, পরিষদের সচিব, অন্যান্য মেম্বর ও সুবিধা ভোগীরা। গতকাল রবিবার পরিষদে চাল বিতরণকালে ট্যাগ অফিসার মৃলেশ কান্তি মজুমদার বলেন, চাল আত্মসাতের অভিযোগ কাল্পনিক। ৩ মাসের চাল বিতরন করা হয়েছে। কার্ডেও ৩ মাসের স্বাক্ষর করা হয়েছে। আত্মসাতের সুযোগ নেই। ইউপি সদস্যরা বললেন একই কথা।

সুবিধাভোগী ডেউয়াতলা গ্রামের বিউটি বেগম(৩৮), ঠাকুরানতলা গ্রামের রুমি বেগম(৪২), তাসলিমা বেগম(৩৫), জিউধরা রাজিয়া বেগম(৩৫) ও ছোট লক্ষিখালী গ্রামের তৃপ্তি রানী হালদার(৩৪) ক্ষোভের সাথে বলেন, ইউনিয়ন চেয়ারম্যান চাল বিতরণে কোনো অনিয়ম বা আত্মস্বাত করেনি। প্রত্যকের নিজ নিজ বইয়ে ৩ মাসের স্বাক্ষর করে ৩ মাসেরই চাল নিয়েছি। বাকি এক মাসের চাল আজ রবিবার আমরা পেয়েছি। একটি মহল চেয়ারম্যানের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন করার জন্য তার বিরুদ্ধে মিথ্যা অববাদ ও অভিযোগ দিয়েছে। আমরা এঘটনার প্রতিবাদ জানাই।

এদিকে চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম বাদশা চাল বিতরনে অভিযোগের বিষয়ে বলেন, ভিজিডি কার্ডধারীরা ৩ মাসের চাল পূর্বে পেয়েছেন। বাকি ১ মাসের চাল বরিবার বিতরণ করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া গরীবের এ চাল বিতরনে কোন অনিয়ম হতে পারে না। ২৬০ জন ভিজিডি তালিকাভূক্ত ছাড়াও তিনি নিজ অর্থায়নে ৯ ওয়ার্ডের ২৩৫জন হতদরিদ্র পরিবারের মাঝে চাল দিয়ে আসছেন।

ইউপি সদস্য আব্দুল হাকিম মৃধা, আরিফুল কবির বাচ্চু, শিমুল কান্তি মিস্ত্রী, চান মিয়া শেখ বলেন, ভিজিডি সুবিধাভোগীরা নিয়ম অনুযায়ী চাল পেয়ে আসছে। এবারে নতুন তালিকা হওয়ার কারনে ৩ মাসের চাল একত্রে বাকি ১ মাসের চাল বরিবার দেওয়া হয়েছে। চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে একটি স্বার্থান্বেষী মহল মিথ্যা অপপ্রচার চালিয়ে ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের চেষ্টা করেছে।

শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

দি নিউজ এর বিশেষ প্রকাশনা

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন

© All rights reserved © 2019  
IT & Technical Support: BiswaJit