শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১২:০৫ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ খবর :
আশাশুনিতে দুর্গোৎসব উপলক্ষে মতবিনিময় সভা শিশু-কিশোরদেরকে আগামী দিনের সৈনিক হিসেবে গড়ে তুলতে হবে -মোস্তাফা জব্বার মুক্তিযুদ্ধের ন্যায় গেরিলা যুদ্ধ করে ষড়যন্ত্রকারীদের নিশ্চিহ্ন করতে হবে -ধর্ম প্রতিমন্ত্রী চিলমারীর মাদক সম্রাট খোকা গ্রেফতার নদীকে নিয়ে কিছু করার এখন সুবর্ণ সুযোগ -নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী মাদক ও অনিয়মের বিরুদ্ধে অভিযান চলবে -তথ্যমন্ত্রী প্রতিবেশীর পায়ে উঠলো শিশু লিমনের মরদেহ যশোর এম এসটিপি স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে সীমাহীন অভিযোগ নির্মানাধীন ঝিনাইদহ পৌর শপিংমল’র বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে সাংবাদিক সম্মেলন বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন

প্রোগ্রামিং শিক্ষা প্রাথমিক স্তর থেকে শুরু হবে -মোস্তাফা জব্বার

প্রোগ্রামিং শিক্ষা

ঢাকা ২২ মে : কম্পিউটার প্রোগ্রামিং শিক্ষা প্রাথমিক স্তর থেকে শুরু হবে। এটি শুধু প্রোগ্রামার হবার জন্য নয়। এটি শিশুর জীবনে যে কোন সমস্যা মোকাবেলায় কাজে লাগবে। বললেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী জনাব মোস্তাফা জব্বার।

মন্ত্রী আজ ঢাকায় কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে আইসিটি বিভাগ এবং ইয়াংবাংলা‘র যৌথ উদ্যোগে জাতীয় শিশু কিশোর প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা ২০১৯ এর প্রশিক্ষকদের প্রশিক্ষণ কর্মশালার উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, আগামী দিনের প্রযুক্তির বিস্ময়কর চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় উপযোগী করে গড়ে তুলতে হলে শিশুদেরকে যুক্তিসংগত চিন্তাভাবনা করার সুযোগ দিতে হবে, সৃজনশীলতা তাদের মধ্যে তৈরি করতে হবে এবং সমস্যা সমাধানের সক্ষমতা অর্জনে তাদের প্রস্তুত করতে হবে।

জনাব মোস্তাফা জব্বার প্রাথমিক স্তরে তথ্যপ্রযুক্তি শিক্ষাকে বাধ্যতামূলক করতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি উপদেষ্টা জনাব সজীব ওয়াজেদ এর নির্দেশনার উদ্ধৃতি দিয়ে বলেন, প্রোগ্রামিং শিখাটা প্রাথমিক স্তর থেকেই শুরু হবে। এরই ধারাবাহিকতায় জাতীয় পর্যায়ে শিশু কিশোরদের প্রোগ্রার্মিং টুর্ণামেন্ট আমরা বাধ্যতামূলক করতে চাই।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী বলেন, শিল্প বিপ্লবের চতুর্থ স্তরে আমরা প্রবেশ করেছি। এই স্তরের প্রযুক্তির চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা হবে সবচেয়ে কঠিন। যারা যোগ্য তারাই টিকবে। অযোগ্যরা হারিয়ে যাবে। আগামী ৫ বছরে বিদ্যমান পেশার শতকরা ৮০টিরই অস্তিত্ব থাকবে না। ডিজিটাল যুগে পৃথিবীতে প্রতিমূহুর্ত পরিবর্তনশীল। পৃথিবীতে কৃষিযুগ গেছে হাজার হাজার বছর কিন্তু ডিজিটাল যুগে রূপান্তর ঘটছে প্রতিমূহুর্তে। আগামী দিনে পেশাগত যে পরিবর্তন আসবে তার প্রতিটির সাথে কোন না কোনভাবে প্রোগ্রামিং যুক্ত থাকবে বলেন মন্ত্রী।

মন্ত্রী শিশুদের জন্য প্রোগ্রামিংয়ের প্রয়োজনীয়তার বিষয়ে বিস্তারিতভাবে তুলে ধরে বলেন, ‘প্রোগ্রামিংয়ের মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে, আমরা শিশুদেরকে ভবিষ্যতের জন্য তৈরি করছি।

ডিজিটাল পদ্ধতিতে প্রচলিত পদ্ধতির একবছরের পাঠ্যক্রম এক মাসে শিশুদের আয়ত্তে আনার কয়েকটি দৃষ্টান্ত তুলে ধরে টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী বলেন, শিশুদের শৈশবে যা শিখানো যায় বড় হলে ক্রমান্বয়ে তা কঠিন হয়ে যায়।

শিশুদের জন্য মৌলিক শিক্ষা প্রদানের প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করে জনাব মোস্তাফা জব্বার বলেন, শিশুদের বর্ণমালা চেনানো যেরকম জরুরী, যোগ বিয়োগ শেখানোও জরুরী। ঠিক তেমনি তাকে প্রোগ্রামার শিখানোটাও জরুরী।

মন্ত্রী বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশের রূপকার প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা‘র দূরদৃষ্টিসম্পন্ন নেতৃত্বে গত দশ বছওে বাংলাদেশ তথ্যপ্রযুক্তি দুনিয়ায় অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। জÍানভিত্তিক সমাজ বিনির্মাণে যুগান্তকারি বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ ও বাস্তবায়িত হচ্ছে। অগ্রগতির এই অগ্রযাত্রা অব্যহত থাকলে ডিজিটাল শিল্প বিপ্লবে বাংলাদেশ হবে বিশে^র বিস্ময়।

মন্ত্রী প্রশিক্ষণার্থীদের প্রতি তাদের প্রশিক্ষণলব্ধ জÍান শিশুদের কল্যাণে কাজে লাগাতে আন্তরিকতার সাথে এগিয়ে নেওয়ার আহ্বান জানান।

এর আগে গত বছর দেশে প্রথমবারের মত শিশু কিশোর প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা শুরু হয়।

শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

দি নিউজ এর বিশেষ প্রকাশনা

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন

All rights reserved © -2019
IT & Technical Support: BiswaJit