বুধবার, ২২ মে ২০১৯, ০৭:২১ অপরাহ্ন

সর্বশেষ খবর :
ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নে সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য নিয়ে বাংলাদেশ অগ্রসর হচ্ছে -আইসিটি প্রতিমন্ত্রী পলক  বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রীর রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্প পরিদর্শন চেক প্রজাতন্ত্রের সাথে বাংলাদেশের বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বৃদ্ধির চুক্তি স্বাক্ষরিত নড়াইলে হত্যাকাণ্ডের জের ধরে আসামীদের বাড়ি লুটপাট ও ভাংচুর পুলিশ জনগণের বন্ধুঃ পুলিশ সুপার নড়াইল নড়াইলে গভীর রাতে ডিবি পুলিশের পৃথক অভিযানে ইয়াবাসহ গ্রেফতার-২ ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে বাংলাদেশের সাথে কাজ করবে এস্তোনিয়া প্রতিমন্ত্রী যোগ দেয়ায় মন্ত্রণালয়ের কাজের গতি বাড়বে -তথ্যমন্ত্রী নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুতের দাবিতে উত্তাল নবীগঞ্জ॥ রাস্তা অবরোধ ॥ ৭ দিনের আল্টিমেটাম প্রবীর সিকদারের গ্রেপ্তারের দাবি ফরিদপুরের মুক্তিযোদ্ধাদের

প্রযুক্তির উদ্ভাবনে আগামী ৫ বছরের বাংলাদেশ হবে অচিন্তনীয়

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী জনাব মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের যুগ হচ্ছে উদ্ভাবনের যুগ। চলমান ডিজিটাল শিল্প বিপ্লবের এই যুগে যারা উদ্ভাবন করবে না তারা টিকবে না, বিষয়টি চ্যালেঞ্জিং। তিনি বলেন উদ্ভাবনের দিক থেকে বাংলাদেশ এক অপার সম্ভাবনাময় দেশ। এরই ধারাবাহিকতায় আগামী ৫ বছরে বাংলাদেশের পরিবর্তন হবে অচিন্তনীয়।

মন্ত্রী আজ ঢাকায় জিপিও মিলনায়তনে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ আয়োজিত ইনোভেশন শোকেসিং ২০১৯ এর সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী বলেন, কৃষি যুগের হাজার হাজার বছরে নতুন উদ্ভাবনের প্রয়োজন ছিল না। শিল্প যুগে প্রতিনিয়তই পরিবর্তন হচ্ছে। প্রথম তিনটি শিল্প বিপ্লবে উদ্ভাবনের নেতৃত্বে ছিল আমেরিকা ও ইউরোপ এবং এশিয়ায় জাপান। এখন আর তারা সেই নেতৃত্বের জায়গায় থাকছে না। কারণ তাদের তরুণ জনগোষ্ঠীর অভাব। আমাদের তরুণ জনগোষ্ঠী আছে এবং তারা খুবই মেধাবী। তারাই আমাদের উদ্ভাবনের ভিত্তি হিসেবে কাজ করতে পারবে। তারুণ্যের ব্যবহার করতে হবে উদ্ভাবনের জন্য। বাংলাদেশ গত দশবছরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে রূপান্তরের ক্ষেত্রে যে অগ্রগতি দেখিয়েছেন তা বিস্ময়কর। সরকার এ ব্যাপারে শতবছর অতিক্রম করে আসছে।

টেলিকম বিভাগের সাথে জনগণের নিবিড় সম্পৃক্ততার প্রসংঙ্গ তুলে ধরে মন্ত্রী বলেন, দুর্যোগ মোকাবেলায় এ বিভাগের সাম্প্রতিক উদ্ভাবন খুবই ফলপ্রসূ ভ’মিকা রেখেছে। মন্ত্রী জাতিকে আরও নতুন নতুন উদ্ভাবন উপহার দেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্টদের নিবিড়ভাবে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, এই ক্ষেত্রে সম্ভাব্য সব ধরনের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে।

অনুষ্ঠানে মন্ত্রী পরিষদ বিভাগের সিনিয়র সচিব ( সমন্বয় ও সংস্কার), ড. মো: শামসুল আরেফিন, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব অশোক কুমার বিশ্বাস, এটুআই পরিচালক মো: মোস্তাফিজুর রহমান এবং ডাক, টেলিযোগাযোগ বিভাগের চীফ ইনোভেটর অফিসার, মো: আজিজুল ইসলাম বক্তৃতা করেন।

এর আগে মন্ত্রী ইনোভেশন শোকেসিং ২০১৯ পরিদর্শন করেন। ইনোভেশন শোকেসিং ২০১৯ এ প্রদর্শিত উল্লেখযোগ্য উদ্ভাবনীগুলোর মধ্যে ছিল বিটিআরসি এর আইএমইআই ডাটাবেস ও এনওসি স্বয়ংক্রীয়করণ এবং কেন্দ্রীয় বায়োমেটিক যাচাইকরণ প্লাটফরম। বিটিসিএল এর ডায়ালার, বাংলাদেশ ডাক বিভাগের ডিজিটাল আর্থিক সেবা নগদ এবং টেলিটক এর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অনলাইন ভর্তি ব্যবস্থা ও ফলাফল যাচাইকরণ এবং আইভিআর ব্যবহার করে দুর্যোগের আগাম বার্তা প্রদান।

এই উদ্যোগ সমূহের সার্বিক সহায়তায় ছিলো এটুআই, মন্ত্রী পরিষদ বিভাগ, তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ ইউএস এআইডি এবং ইউএনডিপি।

শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

দি নিউজ এর বিশেষ প্রকাশনা

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন

© All rights reserved © 2019  
IT & Technical Support: BiswaJit