শনিবার, ২৪ অগাস্ট ২০১৯, ০৩:৫৭ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ খবর :
ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের অধিকার বঞ্চিত করছে চিন ও পাকিস্তান -জাতিসংঘ টেরর ফান্ডি ও আর্থিক দুর্ণীতির অভিযোগে ফের কালো তালিকাভুক্ত হল পাকিস্তান ভারতের আর্থিক বৃদ্ধি আমেরিকা-চিনের থেকেও বেশি -ভারতের অর্থমন্ত্রী রোহিঙ্গাদের ফেরত না যাওয়ার উস্কানি দিচ্ছেন কিছু এনজিও -তথ্যমন্ত্রী সাম্প্রদায়িক শক্তির উত্থানের বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে -নৌপ্রতিমন্ত্রী প্রবাসী কর্মীরা যেন সঠিক সময়ে সঠিক সেবা পায় -প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী রাষ্ট্রের শত্রুদের আর বাড়তে দেওয়া যাবে না -মোস্তাফা জব্বার ডেঙ্গু মোকাবিলায় জনগণকেও এগিয়ে আসতে হবে -স্থানীয় সরকার মন্ত্রী অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়তে হবে -পরিকল্পনামন্ত্রী নড়াইলে হিন্দু সম্প্রদায়ের আরাধ্য ভগবান শ্রীকৃষ্ণের জন্মাষ্টমী উপলক্ষে সুবিশাল বর্ণাঢ্য র‌্যালী

ডাকসু নির্বাচনে ছাত্রদলের প্রার্থী হচ্ছেন যারা

১১ মার্চ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবার কথা রয়েছে। এ লক্ষ্যে প্রার্থী খুঁজছে বিএনপির ভ্যানগার্ড ছাত্রদল। তবে সংগঠনটির শীর্ষ নেতাদের প্রায় সবাই বয়স্ক হওয়ায় প্রার্থী খুঁজতে ঘাম ঝরছে সংগঠনের শীর্ষ নেতাদের। দলের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার নেতাদের সঙ্গে কথা বলে এসব তথ্য জানা গেছে।

শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ত্রিশ বছর ও এমফিলের যোগ্যতা দিয়ে দলের শীর্ষ নেতাদের কেউই প্রার্থী হতে পারছেন না। ছাত্রদলের সবশেষ কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষণা করা হয় ২০১৪ সালে। এতে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক হন যথাক্রমে রাজিব আহসান ও আকরামুল হাসান।

রাজিব আহসান ১৯৯৫-৯৬ শিক্ষাবর্ষে ঢাবি বাংলা বিভাগে ভর্তি হন, সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান অ্যাকাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগে ভর্তি হন ১৯৯৭-৯৮ শিক্ষাবর্ষে। দুজনেই চল্লিশোর্ধ্ব বয়স।

বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি আল মেহেদী তালুকদার ২০০২-০৩ শিক্ষাবর্ষে অ্যাকাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগে, সাধারণ সম্পাদক আবুল বাশার ২০০৩-০৪ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি হন তৎকালীন সংস্কৃত ও পালি বিভাগে ভর্তি হন। তাদের দুজনেরই বয়স ত্রিমের ওপর।

ফলে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় ও বিশ্ববিদ্যালয় কমিটির মূল নেতাদের কেউই প্রার্থী হতে পারছেন না। এ কারণে যোগ্য প্রার্থী সংকট দেখা দিতে পারে বিএনপির ভ্যানগার্ড ছাত্রদলে।

তবে দলটির শীর্ষ নেতারা বলছেন, সাধারণ শিক্ষার্থীদের মধ্যে পরিচিতি আছে, নেতিবাচক কর্মকাণ্ডে জড়ানোর রেকর্ড নেই, ফল ভালো এবং সাংগঠনিক প্রজ্ঞার অধিকারী- এমন শিক্ষার্থীদেরই ভিপি-জিএস-এজিএস পদে ভাবা হচ্ছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ২০০৭-৮ সেশনে ভর্তি হওয়া নাসির উদ্দিন নাসির বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদলের সহ সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি বলছেন, এখনও প্রার্থী চূড়ান্ত হয়নি। ছাত্রদল বিশ্ববিদ্যালয়ে সহাবস্থান চায়। ভয়মুক্ত, সন্ত্রাসহীন ও আস্থাশীল পরিবেশে নির্বাচন করতে চায়। এজন্য ভোটকেন্দ্র হলের বাইরে রাখারও দাবি জানিয়েছি। কিন্তু প্রশাসন সে দাবি মানেনি। শিক্ষার্থীবান্ধব, সৃজনশীল নেতৃত্ব, পরিশ্রমী ও মেধাবীরাই ছাত্রদলের প্যানেলে নির্বাচন করবে।

ছাত্রদল সভাপতি আবুল বাশার সিদ্দিকী বলেন, প্রশাসন ছাত্রলীগের দাবি অনুযায়ী গঠনতন্ত্র প্রণয়ন করেছে। প্রার্থিতা যোগ্যতা নির্ধারণ করা হয়েছে তাদের কথা চিন্তা করেই। তবু আমরা খোঁজখবর নিচ্ছি। বিশ্ববিদ্যালয় ও হল পর্যায়ের নেতাদের সঙ্গে কথা বলছি। তফসিল হলে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। গ্রহণযোগ্যতা আছে, বিগত দিনে রাজনীতিতে সক্রিয় ছিল, ছাত্রবান্ধব, মেধাবী শিক্ষার্থীদেরই প্যানেলে রাখা হবে।

শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

দি নিউজ এর বিশেষ প্রকাশনা

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন

All rights reserved © -2019
IT & Technical Support: BiswaJit