রবিবার, ১৬ জুন ২০১৯, ১০:৪৬ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ খবর :
কিশোরী ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার স্বঘোষিত ধর্মগুরু আজম বিশ্বকাপে ভারত-পাকিস্তান বিগত সাক্ষাৎকারের ফলাফল সড়ক দুর্ঘটনা রোধে মেহেরপুরে অবৈধ ও অনিবন্ধিত যানবাহন আটক মেহেরপুরে হেল্প ফাউন্ডেশনের ইউথ ডেভেলপমেন্ট শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত কুড়িগ্রামের রৌমারীর উপজেলার অভ্যন্তরীণ যোগাযোগ ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়েছে পূর্বাচলে হবে অত্যাধুনিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম -ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বাংলাদেশের অভূতপূর্ব উন্নয়নে সমগ্র বিশ্বের প্রশংসা– তথ্যমন্ত্রী প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে নিজেদের জীবন গড়তে হবে -মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে গরুর শিং এর আঘাতে কৃষক নিহত বাজেট নিয়ে বিএনপি ও সিপিডিকে তথ্যমন্ত্রীর একহাত

আল্লামা শফীর নারী শিক্ষা নিয়ে বক্তব্য অনাকাঙ্ক্ষিত, অনভিপ্রেত ও দুঃখজনক

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর

আল্লামা শফী নারী শিক্ষা নিয়ে যে বক্তব্য দিয়েছেন তা অনাকাঙ্ক্ষিত, অনভিপ্রেত ও দুঃখজনক। একবিংশ শতাব্দীর দ্বিতীয় দশকে এ ধরনের বক্তব্য বাংলাদেশকে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে বিব্রত করবে। বললেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

রোববার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এসব কথা বলেন বিএনপি মহাসচিব।

মির্জা ফখরুল বলেন, মেয়েদের স্কুল-কলেজে না পাঠানোর জন্য হেফাজতের আমির আল্লামা শাহ আহমেদ শফীর বক্তব্যে আমি হতবাক ও বিস্মিত হয়েছি।

বিএনপির সহদফতর সম্পাদক মুহাম্মদ মুনির হোসেন প্রেরিত ওই বিবৃতি বলা হয়, নারী শিক্ষার সঙ্গে ধর্মের কোনো বিরোধ নেই। বিএনপি মনে করে নারী সুশিক্ষায় আলোকিত না হলে তাদের বিকাশ ও প্রকৃত ক্ষমতায়ন হবে না।

তিনি বলেন, নারী-পুরুষ নির্বিশেষে শিক্ষিত হওয়া ছাড়া ইসলামে সমাজকল্যাণ, অর্থনেতিক ও মানবিক সাম্যসহ ইসলামের অন্তর্নিহিত মর্মবাণী বুঝতে সক্ষম হবে না। সন্তানের প্রাথমিক শিক্ষালাভ ঘটে মায়ের কাছ থেকেই। নৈতিক ও অক্ষর পরিচয়ের প্রথম পাঠশালাই হলো মায়ের সাহচার্য। সুতরাং মা সুশিক্ষিত না হলে পারিবারিক প্রতিষ্ঠানটি ঐক্যবদ্ধ ও সুসংহত হয় না।

বিবৃতিতে মির্জা ফখরুল বলেন, সামাজিক অন্যায় ও বৈষম্য দূর করার জন্য অবশ্যই নারীর শিক্ষা অপরিহার্য। বাংলাদেশের মোট জনসমষ্টির অর্ধেকই নারী, প্রাচীন প্রথা ও কুসংস্কারের নিগড় থেকে বেরিয়ে এসে জাতি গঠনমূলক ও জাতীয় অর্থনীতিতে যথার্থ ভূমিকা পালনের প্রধান শর্ত হচ্ছে নারী শিক্ষা।

তিনি আরও বলেন, নারীরা শিক্ষিত না হলে তারা সমাজে অমানবিক নষ্টবুদ্ধির মানুষদের প্রতারণা, লাঞ্ছনা ও শোষণ-বঞ্চনা থেকে রক্ষা পাবে না। নিগ্রহ ও অসম্মানের হাত থেকে বাঁচতে বাংলাদেশের অক্ষরহীন নারীদের অবশ্যই পড়ালেখা করতে হবে। তা না হলে আমাদের দেশ ও সমাজ অগ্রসরমান পৃথিবী থেকে অনেক পেছনে অবস্থান করবে।

প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার জুমআর নামাজের পর মেয়েদের পড়াশোনা নিয়ে জামিয়াতুল আহলিয়া দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদ্রাসার ১১৮তম মাহফিল ও দস্তারবন্দি সম্মেলনে বক্তব্য দেন হেফাজত আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফী।

তিনি বলেন, আপনাদের মেয়েদেরকে স্কুল-কলেজে বেন না। বেশি হলে ক্লাস ফোর-ফাইভ পর্যন্ত পড়াতে পারবেন। আর বেশি যদি পড়ান পত্রপত্রিকায় দেখতেছেন আপনারা। ওই মাইয়া (মেয়ে) ক্লাস এইট, নাইন, টেন, এমএ ও বিএ পর্যন্ত পড়ালে কিছু দিন পর আপনার মেয়ে থাকবে না। তাই আপনারা আমার সঙ্গে ওয়াদা করেন। বেশি পড়ালে আপনার মেয়েকে টানাটানি করে অন্য পুরুষ নিয়ে যাবে। আমার এ ওয়াজটা মনে রাখবেন।

শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

দি নিউজ এর বিশেষ প্রকাশনা

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন

© All rights reserved © 2019  
IT & Technical Support: BiswaJit