১৫ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং | ১লা পৌষ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | দুপুর ১:৪৬
সর্বশেষ খবর
অভাবের তাড়নায় সন্তান বিক্রি করলো মা

অভাবের তাড়নায় সন্তান বিক্রি করলো মা

ভোলা প্রতিনিধি॥ অভাবের তাড়নায় পরে নিজ গর্ভের সন্তান বিক্রি করে দিলেন মা। ঘটনাটি ঘটেছে ভোলা সদর উপজেলার রাজাপুর ইউনিয়নের।

ভিক্ষুকের মত মহিলা কাঁদছে আর হাটছে। এমন দৃশ্যই চোখে পড়ে প্রতিবেদকের। কাঁদছেন কেন জানতে চাইলে উত্তরটি এমন হৃদয় বিদারক হবে তা কেইবা জানত।

তিনি বলেন, আমি এক হতভাগিণী মা তাই কাঁদছি। কি করেন জানতেই উত্তর দিল ভিক্ষা, কান্নার কারন টা বলবেন ? হয় আমার ৪টি সন্তান ছিল। ছোট্টটির বয়স ছিল ৭ মাস নাম রেখেছিলাম ইমা। অভাবে পড়ে তাকে আমি বিক্রি করে দিয়েছি।

যিনি সন্তান বিক্রি করেছেন তার নাম মরিয়ম। মরিয়ম আনন্দ বাজার সংলগ্ন আঃ রবের কন্যা। পার্শ্ববর্তী শ্যামপুর তুলাতলি এলাকার বাসিন্দা ছিদ্দিক চাপরাসির পুত্র কামালের স্ত্রী। মরিয়ম জানান, বিগত ৯ মাস পূর্বে ইমার জম্মের আগেই ৩টি সন্তানসহ তাকে কিস্তির টাকার ঋণ করে ফেলে চলে যায় কামাল। কিস্তির দায় ও শারিরীক অসুস্থ্যতা ক্রমেই ঘিরে ফেলে তাকে।

এরই মধ্যে তার কোল জুড়ে আসে আরো ১ কন্যা সন্তান ইমা। কস্টের অমানিসায় আরো ঘিরতে থাকে তাকে। এমন সময় পালতে দিয়ে দেয়ই ২য় সন্তান মীমকে। কান্না ভারি হতে থাকে খুদার জালা ও সন্তানের জালায়। অবশেষে আড়ম্ভ করি ভিক্ষাবৃত্তি। কিন্তু সন্তান কোলে নিয়ে হাটতে পারিনা, সন্তানটি দুধ পায়না, রোগা অইয়্যা যায়। তাই বিক্রি করার ইচ্ছা পোষন করি।

সন্তান বিক্রির টাকা কি করেছেন জানতে চাইলে মরিয়ম বলেন, ঋণের টাকা পরিশোধ করেছি এবং চিকিৎসা করাইছি। এখন ভিক্ষা করি, আর দুই সন্তান নিয়া গুচ্ছ গ্রামে থাকি।

আমার এই ইচ্ছার কথা জানতে পেরে মেহেন্দীগঞ্জের উলানিয়ার বাসিন্দা আবু তাহের ক্রয় করতে সম্মতি প্রকাশ করেন। অভাবী মা মরিয়মের সাথে কথা বলে গত ১৭ অক্টোবর ২০১৮ ইং তারিখে ২০ হাজার টাকায় ক্রয় করেন। আবু তাহের বাংলাদেশ পাট গবেষণা ইন্সটিটিউটে চাকরি করেন বলে জানা গেছে। তিনি দীর্ঘ ৭ বছর আগে বিয়ে করেন। তার কোন সন্তান-সন্ততি নেই। তাই তিনি মরিয়মের মেয়েকে ২০ হাজার টাকায় ক্রয় করেন।

এ ব্যাপারে তিনি বলেন, আমার কোন সন্তান-সন্ততি নেই। তাই একটি সন্তানের আকাঙ্খা ছিল দীর্ঘদিনের। আমি এবং আমার স্ত্রী বাবা-মা’র ডাক শোনা ছিল আকাঙ্খিত। ভোলার সদর উপজেলার রাজাপুর ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের তুলাতুলি এলাকার বাসিন্দা কামালের স্ত্রী একটি সন্তান বিক্রি করবেন শুনে সেখানে যাই। সন্তানে মা মরিয়ম এর সাথে কথা বলে ২০ হাজার টাকার মাধ্যমে তার সন্তান ইমাকে ক্রয় করি। আমাদের দীর্ঘদিনের বাবা-মা ডাক শোনার শুন্যতা লাঘব হলো। আমরা এই সন্তানকে নিজেদের সন্তানের মতই লালন-পালন করবো।

তবুও মা বলে কথা। নাড়ি ছেড়া ধন বলে কথা। যদুরেই থাক, যত ভালো এবং সুখেই থাক মা কিন্তু তা মানতে পারেন না। তাই হতভাগিনী ওই মা সন্তানের কথা মনে হলেই একা একা কাঁদতে থাকেন নিজের অজান্তেই।

শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.