২৪শে জানুয়ারি, ২০১৯ ইং | ১১ই মাঘ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সকাল ৯:০৬
সর্বশেষ খবর
মৃত সনদপত্র প্রদানের প্রশিক্ষণ কর্মসূচি

ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডিকেলে কলেজ ও হসপিটালে মৃত সনদপত্র প্রদানের প্রশিক্ষণ কর্মসূচি

বৃহস্পতিবার ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ এন্ড হসপিটালে ৬ দিন ব্যাপী ‘মেডিকেল সার্টিফিকেট অফ কসেস অফ ডেথ ’ শীর্ষক প্রশিক্ষণ কর্মসূচি শেষ হয়েছে।
গত শনিবার শুরু হওয়া এ ছয় দিন ব্যাপী কর্মসূচিতে ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ এন্ড হসপিটালের বিভিন্ন বিভাগের ১৬৭জন চিকিৎসক প্রশিক্ষণ নেন।
প্রশিক্ষণ কর্মসূচির সমাপনি দিনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজের প্রিন্সপাল ও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের পেশাজীবী চিকিৎসকদের সংগঠন স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের (স্বাচিপ) মহাসচিব অধ্যাপক ডা. এমএ আজিজ।
এসময় অধ্যাপক ডা. এমএ আজিজ বলেন, বিশ্বায়নের যুগে বাংলাদেশ স্বাস্থ্য সেবা ডিজিটাইলড করার লক্ষে কাজ করছে বর্তমান সরকার। চিকিৎসা ক্ষেত্রে বাংলাদেশ সরকার ২০১৪ সালেই ডিজিটাল যুগে প্রবেশ করেছে। যার কারণে বাংলাদেশের চিকিৎসা বিভাগে সারা বিশ্বে রোল মডেলে পরিণত হয়েছে।
তিনি বলেন, স্বাস্থ্য সেক্টরে বাংলাদেশ সরকার একটি বড় কাজ ডাটা বেজ করার লক্ষ্য দেশের মানুষের বিভিন্ন রোগের ধরণ ও মৃত্যুর কারণগুলো সংগ্রহ করে চলেছে।তার অংশ হিসেবে বাংলাদেশ সরকার কয়েকটি সহযোগী আন্তর্জাতিক সংগঠনের সহযোগিতা নিয়ে বাংলাদেশের মৃত্যুর প্রকৃত কারণগুলো ডাটাবেজ আকারে সংগ্রহের কাজ করছে। দেশের রোগীদের রোগের ধরণ ও কারণ জানা থাকলে রােেষ্ট্রর স্বাস্থ্য সেবার মানোন্নয়ন করা সম্ভব হবে।
তরুণ চিকিৎসকদের উদ্দেশ্যে অধ্যাপক ডা. এমএ আজিজ বলেন, দরদী মন নিয়ে চিকিৎসকরা রোগীর সেবা করবেন। ডিজিটাল স্বাস্থ্য সেবার গুরুত্বর্পূণ অংশ হল রোগীর বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ করা। যখন চিকিৎসকরা রোগীর বিষয়ে তথ্য জানাতে চাইবে তখন চিকিৎসকদেও প্রতি ধারণাও বদলে যাবে। চিকিৎসকদের তারা আপন ভাববে।চিকিৎসকদের সবচেয়ে গুরুত্বর্পূণ কাজ রোগীর সম্পর্কিত তথ্যগুলো চিকিৎসক তার কাছ থেকে তুলে রাখা।
অধ্যাপক ডা. এমএ আজিজ বলেন, ‘মেডিকেল সার্টিফিকেট অফ কসেস অফ ডেথ ’ প্রশিক্ষণের মাধ্যমে বাংলাদেশে ১০টি মেডিকেলের চিকিৎসকদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। আমাদের ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজের ভাগ্য ভাল বলতে হবে। এত বড় বড় সরকারি হাসপাতাল থাকার পরও আমাদের হাসপাতালের চিকিৎসকদের এ আধুনিক প্রশিক্ষণ কর্মসূচির আয়োজন করতে পেরেছি। মূলত স্বাস্থ্য অধিদপÍরের সুনজরে ও যোগাযোগ রাখার কারণে আমরা এ ধরণের সরকারি সুযোগ সুবিধা পেয়ে থাকি।
তরুণ চিকিৎসকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, দরদী মন নিয়ে চিকিৎসকরা রোগীর সেবা করবেন। ডিজিটাল স্বাস্থ্য সেবার গুরুত্বর্পূণ অংশ হল রোগীর বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ করা। যখন চিকিৎসকরা রোগীর বিষয়ে তথ্য জানাতে চাইবে তখন চিকিৎসকদেও প্রতি ধারণাও বদলে যাবে। চিকিৎসকদের তারা আপন ভাববে।চিকিৎসকদের সবচেয়ে গুরুত্বর্পূণ কাজ রোগীর সম্পর্কিত তথ্যগুলো চিকিৎসক তার কাছ থেকে তুলে রাখা।
এ প্রশিক্ষণ কর্মসূচির সূচনা অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ এন্ড হসপিটালের উপ পরিচালক আব্দুল মালেক মৃধা আগামী সপ্তাহে ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ এন্ড হসপিটালে এই প্রশিক্ষণ অনুসারে রোগীর ডেট সার্টিফিটিকের আলোকে মৃত ব্যক্তির মূত্যু সনদ লেখতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Pin It on Pinterest

Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial