বৃহস্পতিবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০১৯, ০৪:৪২ অপরাহ্ন

১৮৬ কিমি সাঁতার শুরু ৬৭ বছর বয়সী ক্ষিতীন্দ্র বৈশ্যের

টানা ১৮৬ কিলোমিটার সাঁতার কেটে গিনেস বুকে নাম ওঠানোর লক্ষ্যে নদীতে নেমেছেন ৬৭ বছর বয়সী দূরপাল্লার সাঁতারু মুক্তিযোদ্ধা ক্ষিতীন্দ্র চন্দ্র বৈশ্য। গতকাল সোমবার সকাল ৭টা ১০ মিনিটে শেরপুরের নালিতাবাড়ী শহরের ভোগাই নদীর ওপর সেতুর পশ্চিম প্রান্ত থেকে সাঁতার শুরু করেন তিনি। আগামীকাল বুধবার সকাল ৯টায় টানা ৫৫ ঘণ্টা সাঁতার কেটে তিনি নেত্রকোনা জেলার মদন উপজেলার মগড়া নদীর দেওয়ান বাজার ঘাটে পৌঁছবেন বলে আশা করা হচ্ছে। নালিতাবাড়ী পৌরসভা ও নেত্রকোনা জেলার মদন উপজেলা নাগরিক কমিটি যৌথভাবে তাঁর এ সাঁতারের আয়োজন করেছে।

সাঁতার শুরুর আগে নেত্রকোনা জেলার মদন উপজেলার জাহাঙ্গীরপুর গ্রামের বাসিন্দা ক্ষিতীন্দ্র চন্দ্র বৈশ্য জানান, নতুন প্রজন্মকে আত্মপ্রত্যয়ী ও বিজ্ঞানমনস্ক হিসেবে গড়ে তুলতে তিনি নিজেকে শৌখিন সাঁতারু হিসেবে গড়ে তুলেছেন। যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার এক নারী সাঁতারুর ১৭৭ কিলোমিটারের রেকর্ড ভঙ্গ করে গিনেস বুকে নাম লেখানোর উদ্দেশ্যে তিনি টানা ১৮৫ কিলোমিটার সাঁতার শুরু করতে যাচ্ছেন। ক্ষিতীন্দ্র চন্দ্র আক্ষেপের সঙ্গে বলেন, ‘সাঁতারের জন্য সরকারের তেমন পৃষ্ঠপোষকতা নেই। এই সাঁতারটির প্রস্তুতির জন্য আমার চার বছর সময় ব্যয় করতে হয়েছে। এ জন্য মদন নাগরিক কমিটির সভাপতিসহ আয়োজক অন্যদের ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, ‘গিনেস বুকে আমার এবং দেশের নাম ওঠাতেই শেষ বয়সে আমার এ লড়াই। এটাই হবে আমার জীবনের শেষ সাঁতার। এর আগে আমি ১৬ ঘণ্টায় ১৪৬ কিলোমিটার সাঁতারে অংশগ্রহণ করে সফলকাম হয়েছিলাম। সবার কাছে প্রার্থনা ও আশীর্বাদ কামনা করি যাতে আমি এবারও সফলকাম হতে পারি।’

এদিকে ক্ষিতীন্দ্র চন্দ্র বৈশ্যর এই ‘বিশ্বরেকর্ড’ করার সাঁতার কাটার কথা শুনে কাকডাকা ভোর থেকে ভোগাই নদীর বিভিন্ন ঘাট, নদীর দুই তীর ও সড়কে উত্সুক মানুষের ভিড় জমে। তাঁকে একপলক দেখতে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করতে থাকে শত শত মানুষ। তাঁকে দেখার পর লোকজন হাত নেড়ে স্বাগত জানায় এবং ‘ক্ষিতীন্দ্র’, ‘ক্ষিতীন্দ্র’ বলে চিৎকার করে উৎসাহ দিতে থাকে। সাঁতার কাটার সময় ক্ষিতীন্দ্র বৈশ্যকে সার্বক্ষণিক পর্যবেক্ষণের জন্য চিকিৎসক, উদ্ধারকারী দল, তরলজাতীয় খাবার ও বাদকদল নিয়ে একটি বড় ডিঙি নৌকা ও একটি স্পিডবোট তাঁর পাশাপাশি রয়েছে। এ ছাড়া তিনটি ইঞ্জিনচালিত বড় নৌকায় শতাধিক উত্সুক লোক তাঁকে অনুসরণ করছে।

ভোগাই নদীর তীরে এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানে দূরপাল্লার এ সাঁতারের উদ্বোধন ঘোষণা করেন নালিতাবাড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফুর রহমান। তিনি বলেন, ‘ক্ষিতীন্দ্র চন্দ্র বৈশ্য ১৮৫ কিলোমিটার সাঁতার প্রদর্শনের মধ্য দিয়ে বিশ্বরেকর্ড গড়ে গিনেস বুকে নিজের ও দেশের নাম লেখাবেন বলে আশা করেছেন। নালিতাবাড়ীর ভোগাই নদী থেকে শুরু করে ময়মনসিংহ জেলার হালুয়াঘাটের কংস এবং নেত্রকোনা জেলার মগড়া নদী হয়ে মদন উপজেলার দেওয়ান বাজার ঘাট পর্যন্ত ১৮৬ কিলোমিটার অতিক্রম করার পরিকল্পনা করেছেন তিনি। এর আগে তিনি ১৬ ঘণ্টায় ১৪৬ কিলোমিটার সাঁতারে অংশগ্রহণ করে সফলকাম হয়েছিলেন।’

শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

দি নিউজ এর বিশেষ প্রকাশনা

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন

© All rights reserved © 2019  
IT & Technical Support: BiswaJit