১৯শে আগস্ট, ২০১৮ ইং | ৪ঠা ভাদ্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সন্ধ্যা ৭:১৮
সর্বশেষ খবর

চরভদ্রাসনে পদ্মার ভাঙনে হুমকীর মুখে সরকারী কোটি টাকার বেশী সম্পদ!

ফরিদপুর প্রতিনিধি- ফরিদপুরের চরভদ্রাসন উপজেলা সদরে এমপি ডাঙ্গী গ্রামের মেইন সড়ক,সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়,মসজিদ ও মাদ্রাসার সামনে শুক্রবার পদ্মা নদীর তীব্র ভাঙন চলছে। মাত্র একদিনে শূন্য বসতভিটে, মাঠ জমি ও বৃক্ষ বাগান মিলে প্রায় ৫ একর জমি বিলীন করে রাক্ষুসী পদ্মা নদী মেইন সড়ক ঘেষে অবস্থান করছে। এতে ওই গ্রামের মেইন সড়ক সহ পাশের স্কুল, মসজিদ, মাদ্রাসা ও বসতি পরিবারগুলো পদ্মা নদী মুখে চরম হুমকীর মধ্যে রয়েছে।
সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলার এমপি ডাঙ্গী গ্রাম ছাড়াও পার্শ্ববতী ফাজেলখার ডাঙ্গী ও বালিয়া ডাঙ্গী গ্রামে পদ্মা নদীর তীব্র ভাঙন অব্যাহত রয়েছে। ফাজেলখার ডাংগি জামে মসজিদ ও সরকারি প্রাখমিক বিদ্যালয় পদ্মার কিনারে,যে কোন সময় ভেঙে যেতে পারে।এবং বালিয়া ডাংগি গ্রামের বেরিবাধ ভেঙে পদ্মা এখন বিপদসীমায়।যে কোন সময় বিলিন হতে পারে সদ্য নির্মিত বন্যা আশ্রয় কেন্দ্র,প্রাথমিক বিদ্যালয় ও নির্মান শেষ হওয়ার দিকে কমিউনিটি স্বাস্থ্য ক্লিনিক।সবকিছু মিলিয়ে সরকারের প্রায় কোটি টাকা উপরে লোকসান হতে যাচ্ছে।
এ খরব পেয়ে শুক্রবার দুপুরে ফরিদপুর পাউবো’র নির্বাহী প্রকৌশলী সুলতান মাহমুদ, বিভাগীয় প্রকৌশলী জহির উদ্দিন ও উপজেলা চেয়ারম্যান এ.জি.এম বাদল আমিন ভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শন করেছেন।এ ব্যাপারে ফরিদপুর পাউবো’র নির্বাহী প্রকৌশলী সুলতান মাহমুদ জানান,“ যেহেতু উপজেলা পদ্মা রক্ষা স্থায়ী বাঁধ নির্মান প্রকল্প একনেকে অনুমোদন হয়েছে। তাই আসছে শীত মৌসুমেই বাঁধ নির্মান কাজ শুরু হবে। আপাতত অত্র রাস্তা ও প্রতিষ্ঠানগুলো রক্ষার জন্য জরুরী ভিক্তিতে পদ্মা পারে জিও বালুর ব্যাগ ডাম্পিং করা হবে”।
পদ্মার ভাঙন রক্ষার জন্য গত ক’দিন আগে ফাজেলখার ডাঙ্গী ও বালিয়া ডাঙ্গী গ্রামে নদী পাড়ে প্রায় অর্ধকোটি টাকা ব্যয়ে ১১ হাজার জিও বালুর ব্যাগ ডাম্পিং করা মাত্র পদ্মায় বিলীন হয়ে গেছে। ওই গ্রামের প্রায় অর্ধ কি.মি. বেড়িবাঁধ সহ একটি পাকা মসজিদের অর্ধাংশ বিলীন হয়ে গেছে।
এ ব্যপারে উপজেলা আ.লীগের সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব মোঃ কাউছার অভিযোগ করে বলেন, “ অত্যান্ত নিম্নমানের পদ্মা চরের বালু ভর্তি জিও ব্যাগ ডাম্পিং করার ফলে ভাঙন কবলিত পদ্মা নদীর কোনো প্রতিরোধ হচ্ছে না”।
স্থানিয়ি ইউনিয়ন সদস্য আঃ বারেক মন্ডল জানায়, যদি এই ভাঙন রোধ না হয় তাহলে চরভদ্রাসনের কি হবে আল্লাহ ই জানে।বালুর ব্যাগে কেন ভাঙন রোধ হচ্ছে না তা বলতে পারব না।
শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.