২০শে অক্টোবর, ২০১৮ ইং | ৫ই কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সন্ধ্যা ৭:১৯
সর্বশেষ খবর

নিত্যানন্দ কিশোর দাস ব্রহ্মচারীর বিরুদ্ধে নারী কেলেঙ্কারীর অভিযোগ

বিশেষ প্রতিবেদকঃ “আপনার স্বামী ছেলে বাসায় না থাকলে আমাকে ফোন দিবেন চলে আসব। আর আপনার আমার সম্পর্কের কথা কেউ জানবে না”। এমন কুপ্রস্তাব দিয়ে মানসিক নির্যাতনের কথা বহিঃপ্রকাশ করেছেন ইসকনের দীক্ষিত ভদ্র মহিলা।

সম্প্রতি আন্তর্জাতিক কৃষ্ণভাবনামৃত সংঘ বাংলাদেশের প্রধান কেন্দ্র (স্বামীবাগ) ইস্কনের প্রভুপাদ ট্যুরস এন্ড ট্রাভেলস এর পরিচালক নিত্যানন্দ কিশোর দাস ব্রহ্মচারীর বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ তুলে ধরেন তিনি।

জানা যায়, এই ভদ্রমহিলার পরিবারের সবাই ইসকন ভক্ত। তার স্বামী(যার আদ্যক্ষর “ব”) তথা পরিবারের সাথে নিত্যানন্দ কিশোর দাস ব্রহ্মচারীর পারিবারিকভাবেই সুসম্পর্ক। এই সুযোগ নিয়ে ধর্মীয় কথার ছলে মোবাইল ফোনে খারাপ প্রস্তাব দিত এবং স্বামী স্ত্রীর মধ্যে সম্পর্কের ফাটল সৃষ্টি করার চেষ্টা করতেন।

ভদ্র মহিলা আরো জানান, কোন একদিন তার সাথে রাস্তায় দেখা হলে রিকসায় উঠতে বললে আপত্তি করায় তিনি অকথ্য ভাষায় গালাগালি করেন। পরবর্তিতে ফোনে কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছেন। এভাবে সম্পর্ক করার চেষ্টায় অনেকদিন যাবত কুপ্রস্তাব দিয়ে মানসিক নির্যাতন চালাতেন নিত্যানন্দ কিশোর দাস। সর্বশেষ তিনি ফোনে সরাসরি বলেন আপনার স্বামী এবং ছেলে যখন বাসায় থাকবে না তখন আমাকে ফোন দিবেন, আমি আসব। উক্ত ঘটনা স্বামী অফিস থেকে ফিরলে তাকে জানান এবং অবিরতভাবে কাঁদতে কাঁদতে এর প্রতিকার চান। পরবর্তীতে তার স্বামী ইসকন মন্দিরে বিচার দেন।

ইসকন মন্দির(স্বামীবাগ আশ্রম) এর ম্যানেজার মাধবমুরারী দাস ব্রহ্মচারী বিচার প্রার্থীর স্বামীকে জানান, ইসকন বাংলাদেশের সেক্রেটারী চারুচন্দ্র দাস ব্রহ্মচারী বিদেশে আছেন, তিনি ফিরে আসলে উপযুক্ত বিচার করা হবে।

সিলেটের ইসকন মন্দিরে থাকাকালীন একাধিক মেয়েদের সাথে সম্পর্ক এবং আপত্তিকর অবস্থায় দেখা যাওয়ার কারনে মন্দির থেকে বাহির করে দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে। পরবর্তীতে ঢাকা ইসকন মন্দিরে আশ্রয় নেয় এই নিত্যানন্দ কিশোর দাস।

জানা যায়, ইসকনের অনুসারীরা কখনো অদীক্ষিত লোকের হাতের খাবার এমনকি অদীক্ষিত বাবা মায়ের হাতের খাবারও গ্রহন করেন না অথচ রাজধানীর বিজয়নগর Fars Hotel and Restaurant  এ তিনি খাবার খান। নারী দ্বারা শরীর ম্যাসেজ ও নারী সঙ্গ করার সুযোগ তৈরির জন্য মিজানুর রহিম নামে এক লোকের সাথে সুসম্পর্ক সৃষ্টি করেন। এই ধরনের অনেক হোটেলে যাওয়ার অভিযোগ আছে তার বিরুদ্ধে।

আরো জানা যায়, ইন্দোনেশিয়ার বালিতে এক ভদ্রমহিলার সাথে অনৈতিক কর্মকান্ড করতে গিয়ে ধরা পরে সুকৌশলে বাংলাদেশ পালিয়ে আসেন। পরবর্তীতে বাংলাদেশের একভক্তকে বালির একজন ভক্ত ফোন করে ঘটনা জানান।নিত্যানন্দ কিশোর দাস ব্রহ্মচারীর বিরুদ্ধে নারী কেলেঙ্কারীর অভিযোগ

ইসকন কোন আর্থিক কিংবা ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান নয় এটা একটা ধর্মীয় সংগঠন। সাধারণ মানুষের নিকট থেকে ভিক্ষা ও দানের অর্থে সেবা কার্য পরিচালিত হয়। অথচ এই নিত্যানন্দ কিশোর দাস তিনি দামী মোটর সাইকেল এবং আইফোনসহ একাধিক দামী ব্র্যাণ্ডের মোবাইল ব্যবহার করেন এবং বছরে দুই তিন বার পরিবর্তন করেন।  যা কোটিপতি ধনাঢ্যব্যক্তিদের দ্বারাই সম্ভব। ফেইসবুক আইডিতে দেখা যায় তিনি বর্তমানে ব্যবসায়ী এবং ইসকনে বসেই ধর্মীয় ছদ্মবেশে বিভিন্ন ব্যবসার কার্যক্রম চালাচ্ছেন। ফেইসবুক লিংক https://www.facebook.com/nityananda.kishor?lst=100001470396345%3A100000994601140%3A1533892909

ইসকনের মতো একটা সুনামধারী ধর্মীয় সংগঠনে বসে এই ধরনের নেতিবাচক কার্যকলাপ ইসকন ভক্ত তথা হিন্দু সমাজে বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করেছে। সাধারণ ভক্তবৃন্দ তথা হিন্দু সমাজ এই ঘটনা জানাজানি হওয়ার পরে বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে। ইসকন কতৃপক্ষকে দ্রুততম সময়ের ভিতর এর সম্মানজনক সুরাহা করার দাবী জানিয়েছে। অন্যথায় এই ঘটনার প্রতিবাদে মানববন্ধন, সংবাদ সম্মেলন এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও ধর্মমন্ত্রীর কাছে স্বারকলিপি দেওয়ার প্রস্তুতি গ্রহন করবেন।

শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.