১৪ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৩০শে কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সকাল ৬:৩৮

কোর্টের রায় আগেও ছিল, তখন মুক্তিযোদ্ধা কোটার কথা কেন মনে হয়নি

ছাত্রদের তুমুল আন্দোলনের মুখে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কোটা বাতিলের কথা কেন বলেছিলেন? হাইকোর্টের রায় আগেও ছিল। তখন মুক্তিযোদ্ধা কোটার কথা কেন মনে হয়নি?

হাইকোর্টের রায় থাকায় মুক্তিযোদ্ধা কোটা বাতিল করা সম্ভব নয়- বৃহস্পতিবার (১২ জুলাই) জাতীয় সংসদে দেয়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এমন বক্তব্যের জবাবে একথা বললেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

শুক্রবার (১৩ জুলাই) সকালে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

রিজভী বলেন, বেগম খালেদা জিয়াকে কারাবন্দি করার পরিকল্পনা শেখ হাসিনা অনেক আগেই করেছিলেন। ২০০৯ সালে ক্ষমতায় আসার পর থেকেই তিনি নীলনকশা অনুযায়ী কাজ করতে শুরু করেন। সুতরাং গত পরশু’র বক্তব্য সত্যের অপলাপ।

রিজভী বলেন, শেখ হাসিনার জিঘাংসার শিকার দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া। তার জনপ্রিয়তা শেখ হাসিনার অসহ্যের কারণ। অবৈধ ক্ষমতার মৌতাতে বুঁদ হওয়া নিষ্ঠুর একদলীয় চেতনার শেখ হাসিনা বেগম জিয়ার সাফল্য ও জনপ্রিয়তাকে মেনে নিতে পারেন না বলেই তাকে জনবিচ্ছিন্ন করতে কারাগারে বন্দি করে রেখেছেন।

তিনি বলেন, সংসদে দেয়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্য সত্যের অপলাপ। রাজনৈতিক উদ্দেশ্যেই বেগম জিয়াকে মিথ্যা তথ্যের ওপর ভিত্তি করে সাজানো মামলায় আদালত কর্তৃক সাজা দিয়ে বন্দি করে রাখা হয়েছে। এটি বোঝার জন্য বেশি কষ্ট করতে হয় না।

রিজভী বলেন, মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি শেখ হাসিনার দরদ ভাঁওতাবাজি ছাড়া আর কিছুই নয়। মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি নুন্যতম শ্রদ্ধাবোধ থাকলে ৭১’এর রণাঙ্গনের বীর মুক্তিযোদ্ধা কর্নেল (অব.) ড. অলি আহমেদ বীর বিক্রমের ওপর ছাত্রলীগ-যুবলীগকে দিয়ে হামলা করাতেন না। এ হামলা পরিকল্পিত, তাকে হত্যার উদ্দেশ্যেই এ হামলা করা হয়েছে।

শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.