২৩শে জুন, ২০১৮ ইং | ৯ই আষাঢ়, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | দুপুর ২:১১
প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের নাম ভাঙ্গিয়ে অর্থ আদায়

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের নাম ভাঙ্গিয়ে অর্থ আদায়ের অভিযোগে চার প্রতারক আটক

এন এ রবিউল হাসান লিটন, পঞ্চগড় জেলা প্রতিনিধিঃ পঞ্চগড়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আশ্রায়ন প্রকল্প-২ এর আওতায় বাড়ি করে দেয়ার নামে অর্থ আদায়ের অভিযোগে চার প্রতারককে আটক করা হয়েছে। ছয় জনের একটি সঙ্গবোদ্ধ প্রতারক চক্র গরিব মানুষের কাজ থেকে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছিল।

পঞ্চগড় সদর উপজেলার সাতমেরা ইউনিয়ন পরিষদের কার্যালয় থেকে তাদের আটক করা হয়। আটককৃতরা হল সাতক্ষীরা সদরের রসুলপুর গ্রামের আব্দুল করিমের ছেলে ফুয়াদ আল ইসলাম (৩৫), একই উপজেলার লাবসা গ্রামের নাসির উদ্দীনের স্ত্রী হালিমা বেগম (২৫), পঞ্চগড় সদর উপজেলার গড়িনাবাড়ী ইউনিয়নের গলেহা কান্তমনি গ্রামের সপিজ উদ্দীনের ছেলে মতিয়ার রহমান (৬০) ও সাতমেরা ইউনিয়নের খাসমহল গ্রামের আব্দুল খালেকের ছেলে আব্দুল বারী (২৮)। খাসমহল গ্রামের অজিন উদ্দীনেরছেলে সাইফুল ইসলাম ওছোট ঝিটকিকুড়া গ্রামের আব্দুল হামিদের ছেলে আকবর আলী পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, এই ছয় প্রতারক গত কয়েকদিন ধরে সাতমেরা ইউনিয়নের খাসমহল গ্রামের আব্দুল খালেকের বাড়িতে অবস্থান করে দুঃস্থ ও গৃহহীন মানুষদের বাড়ি করে দেয়ার নামে প্রায় ৫০-৬০ জনের কাছ থেকে জনপ্রতি সর্বনিম্ন পাঁচশত টাকা থেকে দুই হাজার করে প্রায় লক্ষাধিক টাকা ওই প্রতারকচক্র হাতিয়ে নেয়। বিকেলে এই প্রতারক চক্রটি টাকা হাতিয়ে নেয়ার সময় স্থানীয় লোকজন তাদের গতিবিধি ও কথাবার্তায় সন্দেহ জনক হলে তাদের ধরে ইউনিয়ন পরিষদে নিয়ে আসে। পরে সাতমেরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান পঞ্চগড় সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার এহেতেশাম রেজাকে বিষয়টি জানান। পঞ্চগড় সদর থানার অফিসার ইনচার্জ রবিউল আলম সরকার ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়ে ওই চার জনকে আটক করে উপজেলা পরিষদ কার্যালয়ে নিয়ে আসে।

পঞ্চগড় সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার এহেতেশাম রেজা বলেন, প্রতারক চক্রটি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের নাম ভাঙ্গিয়ে গরিব মানুষদের বাড়ি করে দেয়ার নামে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছিল। স্থানীয় লোকজন তাদের আটক করে ইউনিয়ন পরিষদে আটকে রাখে। খবর পেয়ে আমি পঞ্চগড় থানায় জানালে তারা ঘটনাস্থল থেকে তাদের আটক করে। এ ঘটনায় ইউপি সদস্য আফসার আলী বাদী হয়ে পঞ্চগড় সদর থানায় প্রতারনার অভিযোগে মামলা দায়ের করেন।

সদর থানা পুলিশের ওসি রবিউল হাসান সরকার বলেন, আটককৃত চার প্রতারকের বিরুদ্ধে প্রতারনার দায়ে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.